The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

বিমানের থেকেও দামি এমন এক ব্যাগের গল্প!

উড়োজাহাজকে বেশ অভিনবভাবেই উড়িয়েছেন ফরাসি বিলাসবহুল ফ্যাশন হাউজ লুই ভিটন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ করোনা ভাইরাসের মহামারির ধ্বংসযজ্ঞে এই পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি ক্ষতির শিকার হয়েছে বিমান পরিবহন খাত। উড়োজাহাজের ব্যাপক দরপতন হয়েছে। জড়িত কোনো সংস্থাই এখন আর নতুন করে উড়োজাহাজের নির্মাণ বা অর্ডার করছে না।

বিমানের থেকেও দামি এমন এক ব্যাগের গল্প! 1

এমন এক পরিস্থিতিতে সেই উড়োজাহাজকে বেশ অভিনবভাবেই উড়িয়েছেন ফরাসি বিলাসবহুল ফ্যাশন হাউজ লুই ভিটন।

জানা গেছে, বিলাসবহুল এই ফ্যাশন হাউজটি উড়োজাহাজের মতো ব্যাগ তৈরি করে পুরো বিশ্বজুড়ে আলোচনার ঝড় তুলেছে। যে ব্যাগের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৯ হাজার মার্কিন ডলার (বাংলাদেশী টাকায় ৩৩ লাখ টাকারও বেশি)! এই দাম একক ইঞ্জিনবিশিষ্ট সেসনা মডেলের একটি উড়োজাহাজের দামের থেকেও বেশি বলে জানা যায়।

সাধারণতভাবে এই ফ্যাশন হাউজটির ব্যাগগুলোর আকাশছোঁয়া দামই হয়ে থাকে। লুই ভিটন’র বাদামি চামড়ার ওপর ‘এল ভি’ ছাপা ব্যাগগুলোর সর্বনিন্ম দাম ২ হাজার ডলার। তাছাড়াও তাদের তৈরিকৃত অন্যান্য পোশাক, ঘড়ি, গয়না, সুগন্ধি সামগ্রীসহ অন্যান্য উপকরণের দামও অনেক বেশি; যা সাধারণ ক্রেতাদের নাগালের বাইরে থাকে।

এই ব্যাগটি আলোচনার ঝড় তুলেছে তা মূলত, নারীদের জন্য বানানো চার ইঞ্জিনের সাধারণ যাত্রীবাহী উড়োজাহাজের আদলে তৈরি করা হয়েছে একটি ব্যাগ। অন্যান্য ব্যাগের মতোই ‘এল ভি’ ছাপা চামড়ার ব্যাগ এটি।

তবে অনেকেই ব্যাগটির দাম নিয়ে কথাও বলেছেন। কারণ হলো, ১৯৬৮ মডেলের ১৫০ এইচ একক ইঞ্জিনবিশিষ্ট সেসনা উড়োজাহাজের দাম ৩২ হাজার ডলার। সেদিক থেকে ওই উড়োজাহাজের দাম এই ব্যাগের থেকেও অনেক কম। তবে করোনার এই পরিস্থিতির মধ্যেই সবকিছু বাদ দিয়ে আলোচনার তুঙ্গে রয়েছে এই বিশেষ ব্যাগটি।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...