The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

হামাস প্রধান ইরানের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানালেন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় দখলদার ইসরায়েলী বাহিনীর আগ্রাসন প্রতিরোধে ইসলামী প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস যোদ্ধাদের অস্ত্র, প্রযুক্তি ও অর্থ সহায়তা দেওয়ার কারণে ইরানের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছে হামাস।

হামাস প্রধান ইরানের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানালেন 1

হামাসের রাজনৈতিক প্রধান ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইসমাইল হানিয়া বলেছেন, ‘ফিলিস্তিনিদের বিজয়ে ইরান হলো সবচেয়ে বড় অংশীদার।’

গত শুক্রবার (২১ মে) হামাস এবং ইসরায়েলের মধ্যে যুদ্ধবিরতির ঘোষণার কয়েক ঘণ্টা পর গাজায় আয়োজিত এক জনসভায় দেওয়া এক ভাষণে হামাসের রাজনৈতিক প্রধান ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইসমাইল হানিয়া এই কথা বলেন।
ইসমাইল হানিয়া বলেন, গাজা যুদ্ধে ইসরাইলের পরাজয় ভবিষ্যতে বড় ধরনের পরিণতির দিকে যাবে। এই জেরুজালেমই হলো লড়াইয়ের মূল কারণ।

হামাস প্রধান বলেন, ইহুদিবাদীদের আগ্রাসন মোকাবেলা, জেরুজালেম, আল-কুদস এবং আল-আকসার পবিত্রতা রক্ষায় আকুণ্ঠ সমর্থন দিয়ে আসছে ইরান। তারা হলেন আমাদের বিজয়ের সবচেয়ে বড় অংশীদার। আমরা তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। আশা করি- মধ্যপ্রাচ্যের অন্য দেশগুলোও দ্রুত গাজার মুসলিম ভাইদের সহায়তায় এগিয়ে আসবেন।

সংঘাতে প্রতিরোধ সংগঠনগুলোকে আর্থিক এবং সামরিক পৃষ্ঠপোষকতা দেওয়ার জন্য ইরানের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন ইসমাইল হানিয়া। গত বৃহস্পতিবার ইসরাইল ও হামাসের মধ্যে যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয়। শুক্রবার রাত ২টা হতে এই যুদ্ধবিরতি কার্যকর হয়।

ইসরাইলী সংবাদমাধ্যম হারেজৎ জানিয়েছে, মূলত ২০১৪ সালের পর এটিই ছিল সবচেয়ে বড় যুদ্ধ। মিসরের মধ্যস্থতায় এই যুদ্ধবিরতির পরও আল আকসা মসজিদে গত শুক্রবার মুসল্লিদের ওপর হামলা চালায় ইসরাইলি পুলিশ।

উল্লেখ্য, এবার যুদ্ধ শুরুর পর ইসরাইলি হামলায় ২৪৩ জন ফিলিস্তিনি নিহত হন। আহত হন অন্তত হাজার খানেক মানুষ। অপরদিকে হামাসের পাল্টা রকেট হামলায় ১২জন ইসরাইলী নিহত হন। বিগত কয়েক বছরের মধ্যে এটিই ছিলো সবচেয়ে বড় হতাহতের ঘটনা। যা নিয়ে সারা বিশ্ব ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...