The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

গায়কের কপাল কেটে ২০৪ কোটি টাকার হীরা ছিনতাই!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মাঝে-মধ্যেই অদ্ভুত সব কাণ্ড করে ভক্ত-অনুরাগীদের বিস্মিত করেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জনপ্রিয় র‌্যাপার লিল উজি ভার্ট। তবে এক ভক্তের কাণ্ডে তিনি নিজেই বিস্মিত হলেন। তার কপাল কেটে ২০৪ কোটি টাকার হীরা ছিনতাই করছেন এক ভক্ত!

গায়কের কপাল কেটে ২০৪ কোটি টাকার হীরা ছিনতাই! 1

একদিন হঠাৎ ইচ্ছা হলো নিজের কপালে তিনি অমূল্য হীরা বসাবেন। যেটি কপালের টিপ হিসেবেই জ্বলজ্বল করবে। ইচ্ছে হওয়ার পর তা বাস্তবায়নও করলেন। সত্যিই কপালের ওপর ছুরি-কাঁচি চালিয়ে বসালেন সেই হীরা। তবে সেটি কোনো সাধারণ হীরা নয়, ১১ ক্যারেটের ২৪ মিলিয়ন ডলার মূল্যের গোলাপি হীরা বসালেন কপালে। অর্থাৎ লিল উজির হীরার টিপটির মূল্য বাংলাদেশি টাকায় ২০৪ কোটি টাকা!

তবে দু:খের বিষয় হলো এতো দামি হীরা তার কপালে যেনো সইলো না। এক লাইভ শোয়ে এসেই ২০৪ কোটির হীরা হারিয়ে ফেললেন এই সিঙ্গার। তবে ওই হীরা তিনি কিন্তু হারিয়ে ফেলেননি, শোয়ের দর্শকদের কেও একজন তার কপাল কেটে হীরা নিয়ে চম্পট দিয়েছেন!

সম্প্রতি মিয়ামিতে আয়োজিত রোলিং লাউড ফেস্টিভ্যালের শো’য়ে অংশগ্রহণ করেন লিল উজি ভার্ট। শো চলাকালীন গান গাইতে গাইতে তিনি নেমে আসেন দর্শকদের মধ্যে। ঠিক সেখানেই ঘটে গেলো ঘটনাটি।

ওই গান পরিবেশনার সময় তাকে ঘিরে ধরেন বেশ কিছু শ্রোতা। ভিড়ের মধ্যে আচমকাই কেও লিলের কপাল থেকে হীরা বের করে নেন! প্রথমে কিছুই বুঝে উঠতে পারেননি লিল। তারপরই কপালে ব্যথা অনুভব করেন তিনি। দর্শকরা দেখেন লিলের কপাল থেকে রক্ত বের হচ্ছে।

পরে শো থামিয়ে চিকিৎসা নেন লিল। লিল বর্তমানে সুস্থ আছেন। তবে তার সাধের হীরে হারিয়ে শোকে মুহ্যমান।

কপালে প্রায় ২০৪ কোটি টাকা মূল্যের হীরা বসিয়ে রাতারাতি আমেরিকার সংবাদমাধ্যমের শিরোনামে চলে আসেন লিল। এখন হীরা হারিয়ে আবারও সংবাদমাধ্যমের শিরোনামে উঠে এলেন লিল উজি ভার্ট।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে হীরাটিকে দেখে কেনার সিদ্ধান্ত নেন লিল উজি ভার্ট। এ বছরের জানুয়ারিতে তিনি একটি গোলাপি হীরা কিনেছেন জানিয়ে টুইট করেন। ডিজাইনার ইলিয়ট এলিয়েন্টের কাছ থেকে ২০৪ কোটি টাকার হীরাটি কেনেন তিনি। ওই হীরার বীমাও করেন। চলতি বছর ফেব্রুয়ারি মাসে অস্ত্রোপচার করে তা কপালে বসিয়ে নেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জনপ্রিয় র‌্যাপার লিল উজি ভার্ট।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের কাপড়ের মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...