The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ই-কমার্স নিয়ে নতুন পরিকল্পনা

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ইভ্যালির রাসেল এবং তার স্ত্রী শামীমা নাসরিনকে গ্রেফতারের পর দেশজুড়ে ই-কমার্সের এই খাতটি নিয়ে নতুন করে আলোচনা শুরু হয়েছে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ই-কমার্স নিয়ে নতুন পরিকল্পনা 1

সম্ভবনাময় এই খাতটিতে গ্রাহক প্রতারণা চরম মাত্রায় পৌঁছে গেছে। যে কারণে বাংলাদেশে ই-কমার্সের ভবিষ্যত নিয়েও শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন যে, এসব ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের কোনো নিবন্ধন না থাকার কারণে, তাদেরকে আইনের আওতাতেও আনা যাচ্ছে না। যে কারণে দিন দিন সমস্যা আরও বাড়ছে। তবে সম্প্রতি ই-কমার্স খাতে বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে তৎপরতা শুরু করেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। নতুন করে যারা ই-কমার্সের সঙ্গে যুক্ত হতে চাইবেন এবং যারা ই-কমার্সের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন তাদেরকেও নিবন্ধনের আওতায় আনা হবে।

ই-কমার্সের প্রতিষ্ঠানগুলোকে নিবন্ধনের আওতায় আনার পর নিবন্ধিত প্রতিষ্ঠানকে দেওয়া হবে ইউনিক বিজনেস আইডেন্টিটিফিকেশন নম্বর। গ্রাহকরা এই নম্বর যাচাই করেই সঠিক প্রতিষ্ঠান থেকে তখন পণ্য কিনতে পারবেন।

এই বিষয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এবং ডব্লিউটিও সেল মহাপরিচালক মো. হাফিজুর রহমান বলেছেন, ইউনিক বিজনেস আইডেন্টিটিফিকেশন নম্বর নিয়ে ই-কমার্সের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনার জন্য নিবন্ধনের ব্যবস্থা করা হবে। এই নম্বরের মাধ্যমেই গ্রাহকরা ওই প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে খোঁজ খবরও নিতে পারবেন।

এই বিষয়ে ই-ক্যাবের সহ-সভাপতি এবং ই-কমার্স উদ্যোক্তা মোহাম্মদ সাহাব উদ্দিন বলেছেন, এটি খুবই ভালো একটি উদ্যোগ। যাদের ট্রেড লাইসেন্স নেই তারাও এই নিবন্ধন করার সুযোগ পাবেন। যে কারণে নিবন্ধন প্রক্রিয়ায় উদ্যোক্তাদের জন্য তেমন কোনো সমস্যায় হবে না। তবে সত্যতা যাচাইয়ে সব ধরনের তথ্যই নেওয়া হবে।

তথ্যসূত্র: আরটিভি

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের কাপড়ের মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...