The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

সাহিত্য পাঠ মানুষের মস্তিষ্কের ক্ষমতা বাড়ায়! [গবেষণা]

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ সাহিত্য সব সময় মানুষের সৃজনশীলতা বাড়িয়ে দেয় এটা আগে থেকেই প্রতিষ্ঠিত সত্য, বই হচ্ছে মানুষের অকৃত্রিম বন্ধু, এবার গবেষকরা আবিষ্কার করলেন সাহিত্য পাঠ মানুষের মস্তিষ্কের কর্মক্ষমতা বহুগুণ বাড়িয়ে দিতে সক্ষম।


Man-Reading-A-Novel

অনেক মানুষ আছেন যারা বলে থাকেন বই পাঠ তাদের জীবনকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করে কিংবা জীবনকে একঘেয়ে কিংবা কাল্পনিক করে তুলে, কিন্তু গবেষকরা এবার জানালেন বই বা সাহিত্য পাঠ মানুষকে চিন্তা চেতনায় নতুন করে উজ্জীবিত করে এবং মানুষের মস্তিষ্ক সাহিত্য পাঠের মাধ্যমে শক্তিশালী হয়ে উঠে।

আটলান্টার Emory বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক দল সম্প্রতি সাহিত্য পাঠ এবং এর উপকারিতা শীর্ষক এক গবেষণায় দেখেন সাহিত্য আসলেই মানব মস্তিষ্কের জন্য প্রয়োজনীয় একটি বিষয়। গবেষকরা মোট ১২ জন ছাত্রকে Pompeii নামে Robert Harris এর লেখা একটি বিশেষ সাহিত্য পড়তে দেন, এবং গবেষকরা ঐ সব ছাত্রদের মোট ১৪ দিন সময় দেন সাহিত্যটি পড়ে শেষ করার, এসময় গবেষকরা জানান তাঁরা ঐ সব ছাত্রদের লাইফ স্টাইল ১৯ দিন ধরে অনুসরণ করবেন, দেখবেন তাদের মাঝে কি পরিবর্তন এসেছে।

সাহিত্য পাঠের প্রথম ৫ দিনে গবেষকরা ঐ সব ছাত্রের মস্তিষ্কের (fMRI) স্ক্যান করে দেখেন তাদের মস্তিষ্ক বিশ্রাম অবস্থায় রয়েছে, পরবর্তী ৯ দিন ছাত্রদের মস্তিষ্কে দেখা যায় এটি দারুণ চঞ্চল অবস্থায় আছে কারণ এই সময়েই তাঁরা সাহিত্যটির মূল স্বাদ গ্রহণ করা শুরু করেছে এবং এর শেষ জানতে উদ্রিব,সম্পূর্ণ সাহিত্য পাঠ শেষ হলে ছাত্রদের আবার (fMRI)স্ক্যান করা হয় এবং তাদের বিশেষ এমসিকিউ পরীক্ষা নেয়া হয় যা আগেও পঞ্চম দিনের সময় একবার নেয়া হয়েছিল, সে বার থেকে ছাত্ররা সাহিত্য পাঠ শেষে অনেক ভালো ফলাফল করে এবং তাদের মস্তিষ্কের কর্মক্ষমতাও আগের চেয়ে উন্নত দেখা যায়।

গবেষক দলের প্রধান Gregory Berns বলেন, আমাদের এই গবেষণায় দেখা গেছে সাহিত্য পাঠের মাধ্যমে মানুষের মস্তিষ্ক বিশ্রাম অবস্থা থেকে বেড়িয়ে এসে কর্মক্ষম অবস্থায় উপনিত হয়, মানুষ যত বেশি সাহিত্য পড়বে ততো বেশি মস্তিষ্ক কর্মক্ষম হয়ে উঠবে। সুতরাং এখন থেকে বেশি বেশি সাহিত্য পাঠ করুন এবং দুর্বল মস্তিষ্ক সবল করুন।

সাহিত্য পাঠ এবং মস্তিষ্কের ক্ষমতা শীর্ষক এই গবেষণা প্রথম প্রকাশিত হয় Brain Connectivity নামক জার্নালে।

সূত্রঃ দি টেক জার্নাল

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...