যকৃৎ প্রতিস্থাপনে ব্রিটিশ চিকিৎসকদের সাফল্য

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ চিকিৎসা বিজ্ঞান ক্রমেই এগিয়ে যাচ্ছে। যেমনিভাবে মানুষের রোগ-বালাই বেড়েছে, ঠিক তেমনিভাবে চিকিৎসা ব্যবস্থায় দিনকে দিন ঘটছে আমুল পরিবর্তন। ব্রিটিশ চিকিৎসকেরা যকৃৎ প্রতিস্থাপনে নতুন দিগন্তের উন্মোচন করলেন। খবরটি আল জাজিরার উদ্বৃতি দিয়ে প্রকাশ করেছে দৈনিক প্রথম আলো।
Jokkret-0
যকৃৎ প্রতিস্থাপন করতে সাধারণত দাতার কাছ থেকে যকৃৎ সংগ্রহের পর তা রাখা হয় বরফের মধ্যে। এরপর তা রোগীর শরীরে প্রতিস্থাপন করা হয়। এতে অনেক ক্ষেত্রেই যকৃৎ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। কিন্তু এই প্রথমবারের মতো ব্রিটিশ বিশেষজ্ঞরা বরফের মধ্যে না রেখে যকৃৎ প্রতিস্থাপনে সফল হয়েছেন। তাদের উদ্ভাবিত একটি যন্ত্রের মধ্যে যকৃৎ রাখা হয়, যেখানে শরীরের মতোই উষ্ণ পরিবেশে অঙ্গটি জীবন্ত ও সচল থাকে।

এই সাফল্য এলো যেভাবে..

ব্রিটেনের ওই বিশেষজ্ঞ দল গত ১৫ মার্চ এই সাফল্যের ঘোষণা দিয়েছেন। তারা বলছেন, আগামী কয়েক বছরের মধ্যে বিশ্বের বড় বড় হাসপাতালগুলোতে এই যন্ত্রটি ব্যবহার করা সম্ভব হবে। আর এতে অনেকটা ঝুঁকিহীন যকৃৎ প্রতিস্থাপন করা সম্ভব হবে। এই প্রযুক্তি তৈরিতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশলীরা। তারা ২০ বছরের বেশি সময় কাজ করে নতুন যন্ত্রটি উদ্ভাবন করেছেন। বিশেষজ্ঞ দলটি ওই যন্ত্রে যকৃৎ সংরক্ষণের পর গত মাসে দুই ব্যক্তির দেহে তা প্রতিস্থাপন করেন। ওই দুই ব্যক্তি এখন সুস্থ আছেন।

যন্ত্রটির অন্যতম উদ্ভাবক অক্সেফার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক কনস্টানটিন কৌসাস শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আমাদের উদ্ভাবিত যন্ত্রে যকৃৎ সংযুক্ত করার পর তা মানবদেহের ভেতরের পরিবেশের মতোই সক্রিয়ভাবে কাজ করছে। এটা প্রত্যক্ষ করা খুবই রোমাঞ্চকর একটি ব্যাপার ছিল।চ নতুন যন্ত্রটির ভেতরে একটি আবহ তৈরি করা হয় কৃত্রিমভাবে। শরীরের ভেতরের মতোই তাপমাত্রা বজায় রাখা হয়। আল-জাজিরা।

Advertisements
Loading...