শান্তির শহরে রয়েছে মাত্র একজন পুলিশ!

Pic shows: The blind policeman Pan Yong. The story of a blind policeman whose loyal wife acts as his eyes has been inspiring people across the country, with the policeman’s patrol area possibly one of the safest in the country. Pan Yong is the only policeman stationed at Lanba police station near the local train station in Guiyang City, capital of south-west China’s Guizhou Province. After he began losing his eyesight in 2002 because of glaucoma and a cataract, his wife has walked him on daily security checks of the railway station entrance for over 10 years. The 43-year-old’s wife, Tao Hongying, 46, also works at the train station but as a security guard. She believes it was "fate" that brought the two together. The story of Pan Yong and Hongying is impressive not only because of the incredible loyalty shown between the couple, but also because during the time that Pan Yong has been stationed at Lanba police station, he and his wife have created what has been called a "miracle" in terms of public security. There have been no criminal cases, no public security cases, and no traffic accidents over the 10-odd years Pan Yong has been stationed in Lanba as the only officer, something the locals have attributed to the couple’s good karma. Pan Yong, who said he "grew up in a police station", is well known in the town for being hardworking and modest. He said: "I have a small position but I love this profession. My wife calls me a workaholic." He added: "I just feel like I’m contributing more when I stand at my post, even when I don’t have to. Although I can’t see the trains anymore, I can still hear them." Pan Yong said he thought his life was "finished" when he began losing his eyesight in 2002, but his wife’s encouragement gave him renewed hope that he could perform his duties. The couple married in 2004, with Hongying recalling that it was Pan Yong’s "willpower" that attracted her. Pan Yong said of Hongying’s physical and mental support:

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মাত্র একজন পুলিশ একটি শহরে থাকলে সে শহরের মানুষ নিশ্চয়ই রাতে ঘুমাতে পারে না, এমনই তো হওয়ার কথা? কিন্তু ঘটনাটি তা নয়। অপরাধি নেই বলেই পুলিশের প্রয়োজন হয় না!

Pic shows: The blind policeman Pan Yong. The story of a blind policeman whose loyal wife acts as his eyes has been inspiring people across the country, with the policeman’s patrol area possibly one of the safest in the country. Pan Yong is the only policeman stationed at Lanba police station near the local train station in Guiyang City, capital of south-west China’s Guizhou Province. After he began losing his eyesight in 2002 because of glaucoma and a cataract, his wife has walked him on daily security checks of the railway station entrance for over 10 years. The 43-year-old’s wife, Tao Hongying, 46, also works at the train station but as a security guard. She believes it was "fate" that brought the two together. The story of Pan Yong and Hongying is impressive not only because of the incredible loyalty shown between the couple, but also because during the time that Pan Yong has been stationed at Lanba police station, he and his wife have created what has been called a "miracle" in terms of public security. There have been no criminal cases, no public security cases, and no traffic accidents over the 10-odd years Pan Yong has been stationed in Lanba as the only officer, something the locals have attributed to the couple’s good karma. Pan Yong, who said he "grew up in a police station", is well known in the town for being hardworking and modest. He said: "I have a small position but I love this profession. My wife calls me a workaholic." He added: "I just feel like I’m contributing more when I stand at my post, even when I don’t have to. Although I can’t see the trains anymore, I can still hear them." Pan Yong said he thought his life was "finished" when he began losing his eyesight in 2002, but his wife’s encouragement gave him renewed hope that he could perform his duties. The couple married in 2004, with Hongying recalling that it was Pan Yong’s "willpower" that attracted her. Pan Yong said of Hongying’s physical and mental support:

এমন একটি শহরের কথা শুনলে যে কেও আশ্চর্য না হয়ে পারবে না। সত্যিই তাই। এতোবড় একটি শহরে মাত্র একজন পুলিশ! একজন পুলিশ ডিউটি করেন। তাতেই শহরের মানুষ নিরাপদ এবং শান্তিতে বসবাস করছেন! এমন কথা হয়তো কারও বিশ্বাস নাও হতে পারে। কিন্তু ঘটনাটি সত্যি।

Peace just a cop in the city-2

আসলে আমরা অনেক সময় উঠতে-বসতে চায়নাদের গাল-মন্দ করে থাকি। চায়নারা আমাদের প্লাসটিক চাল খাওয়াচ্ছে। কৃত্রিম ডিম খাওয়াচ্ছে ইত্যাদি ইত্যাদি। এমন গালমন্দর পরও তাদের কুর্নিশ জানাতে ইচ্ছা করে, যখন আমরা শুনি, এই চায়নাতে এমন একটি শহর রয়েছে, যেখানে গত ১০ বছরে একটিও অপরাধ সংঘটিত হয়নি।

যেহেতু অপরাধ নেই তাই সেখানে পুলিশেরও প্রয়োজন পড়ে না। ওই শহরে তাই একজন মাত্র পুলিশ রয়েছেন। যিনি একাই পুরো শহর টহল দিয়ে বেড়ান। তবে আশ্চর্যের আরেকটু বাকি রয়েছে। আর তা হলো ওই পুলিশকর্মী আবার চোখে দেখেন না। গ্লুকোমায় চোখ হারিয়েছেন ২০০২ সালে। কিন্তু তারপরেও চাকরিটি তার রয়েছে। তবে সেটি কারও করুণায় নয়। রয়েছেন নিজ দক্ষতায়। যিনি একা একটা শহরকে এমন ঠাণ্ডা রাখতে পারেন তাঁকে সরানো হবেই বা কেনো? প্রতিদিন নিয়ম করে পুলিশের পোশাকে বেরিয়ে পড়েন। তার সঙ্গে থাকেন তার স্ত্রী।

Peace just a cop in the city-3

চীনের দক্ষিণ পশ্চিম শহর লানবা। সেখানে গেলে আপনার সঙ্গে দেখা হবে বছর তেতাল্লিশ বয়সের ওই পুলিশ অফিসার প্যান ইয়ংয়ের। যিনি দৃষ্টিহীন হলেও নিজের কাজের শহরটাকে চেনেন হাতের তালুর মতোই। চেনেন সেখানকার মানুষগুলোকেও। আর তাই সিয়া চং পুলিশ স্টেশনের তিনিই একমাত্র পুলিশ আধিকারিক।

Peace just a cop in the city-4

একেবারে ছোট এলাকা নয়। সিয়া চং রেলওয়ে স্টেশনকে ঘিরে চারদিকে ৩৮ কিলোমিটার এলাকা। যার মধ্যে রয়েছে ৩টি প্রশাসনিক গ্রাম, ১৩টি ছোট গ্রাম। এসব কিছুর দায়িত্বে রয়েছেন এই পুলিশ কর্মকর্তা প্যান। গত ১০ বছরে এই শহরে না হয়েছে কোনও খুন-খামারি, হয়নি চুরি-ছিনতাই, না হয়েছে কোনো দুর্ঘটনা! এর নেপথ্য ভূমিকায় আরও একজনের নীরব ভূমিকা রয়েছে। তিনি প্যানের স্ত্রী তাও হংগিং। ৪৬ বছর বয়সের ওই মহিলা লোকাল রেলওয়ে স্টেশনের রক্ষী। প্রতিদিন পুলিশ আধিকারিক স্বামীর সঙ্গে তিনিও সারা শহর চক্কর মারেন। তার ভূমিকাও অগ্রগণ্য। এমন একজন দম্পতি এবং এমন একটি শান্তিপ্রিয় শহর সত্যিই দুষ্পাপ্যের মতোই। আমরাও যদি এমন একটি শহরে বসবাস করতে পারতাম!

Advertisements
Loading...