জেলের ভিতরে বন্দীদের ফ্যাশন শো!

In this Monday, Oct. 27, 2014 photo, a model adjusts her dress before walking a runway for a fashion show in Neve Tirza prison in Ramle, central Israel. Neve Tirza, Israel’s only women’s prison, hosted its first fashion show Monday where models on towering heels strutted on a red catwalk, showcasing clothes designed and made by inmates. (AP Photo/Oded Balilty)

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ এবার এক ব্যতিক্রমি ফ্যাশন শো’র খবর পাওয়া গেছে। আর তা হলো জেলের ভিতরে বন্দীদের ফ্যাশন শো! এমন আয়োজন দেখে সবাই হতবাক।

In this Monday, Oct. 27, 2014 photo, a model adjusts her dress before walking a runway for a fashion show in Neve Tirza prison in Ramle, central Israel. Neve Tirza, Israel’s only women’s prison, hosted its first fashion show Monday where models on towering heels strutted on a red catwalk, showcasing clothes designed and made by inmates. (AP Photo/Oded Balilty)

এমন ব্যতিক্রমি ফ্যাশন শো’র আয়োজন আগে কখনও দেখা যায়নি। তবে এবার প্রমাণ হলো জেলখানাতেও মানুষ স্বাভাবিকভাবে জীবন-যাপন করতে পারে। সংশোধনের সুযোগ পেলে অপরাধীরাও যে সমাজে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হতে পারেন, এটি তারই এক প্রমাণ। এমন ব্যতিক্রমি আয়োজন করা হয়েছিল ইজরায়েলের এক কারাগারে। সেখানকার কয়েদিরা এমন সুযোগ পেয়েছেন। অপরাধের শাস্তিকে দূরে রেখে কয়েক ঘণ্টার জন্য, খোলা পরিবেশের মতো হাঁটার সুযোগ মিলেছিল র‌্যাম্পে, তাও আবার মডেল বেশে। আর সেই সুযোগ পেয়ে রীতিমত পেশাদারদের মতো ‘ক্যাটওয়াক’ করে তাক লাগিয়ে দেন সেখানকার বন্দীরা।

এ সপ্তাহেই এই দারুণ ফ্যাশন শো হয়ে গেলো নেভে তিরজা জেলখানায়। বিভিন্ন অপরাধমূলক কাজের শাস্তি হিসেবে তাদের জায়গা হয়েছে এই সংশোধানাগারে। মেয়েদের জন্য ইজরায়েলের একমাত্র এই জেল কর্তৃপক্ষ কয়েদিদের চিরকালের জন্য অপরাধী হিসেবে দেখতে চান না। তারা চান যাঁর যে কাজে মেধা রয়েছে, জেলজীবন শেষে তাঁরা সেরকম কোনো কাজ করে গৌরবজনক জীবন শুরু করুক। আর তাই জেল কর্তৃপক্ষের সেই চাওয়া থেকেই কয়েদিদের নিয়ে ফ্যাশন শো-র আয়োজন করা হয়েছিল। শুধু তাই নয়, তাঁদের তৈরি পোশাক দিয়েই এই আয়োজন করা হয়।

prisoners inside prison fashion show-2

ব্যতিক্রমি এই ফ্যাশন শো-কে সফল করে তুলতে বেশ গোছ-গাছ করে কাজ শুরু করেছিল ইজরায়েলের ফ্যাশন স্কুল স্টুডিয়ো সিক্স-বি। ওই স্কুলের বিজনেস ডেভলপমেন্ট অফিসার ইয়ানিভ শোয়ারৎজ জানান, তাদের দায়িত্ব ছিল মূলত ফ্যাশন শো-র জন্য বন্দীদের টেইন করা। তাদের কাছে প্রশিক্ষণ পেয়ে দারুণ দারুণ সব পোশাক তৈরি করেছেন বন্দীরা। যে পোশাক পরে রেড কার্পেটের উপর পেশাদার মডেলদের মতো ক্যাটওয়াক করেছেন কারাবন্দীরা। এসব বন্দিরা ক্যাটওয়াক শুরুর আগে হেয়ারস্টাইলও করেছেন নিজেরাই। এভাবে তারা বন্দি জীবনে এক স্বাধীন জীবনের অন্যরকম অনুষ্ঠান উপহার দিয়ে সকলকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন। বন্দিরা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে গিয়ে তাদের দক্ষতা প্রদর্শন করার সুযোগ পাবে সেটিই তাদের আশা।

Advertisements
Loading...