মালয়েশিয়ার মুঘল নির্মাণশৈলীর মসজিদ কাপিতান কেলিং মসজিদ

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ শুভ সকাল। আজ শুক্রবার, ২২ জানুয়ারি ২০১৬ খৃস্টাব্দ, ৯ মাঘ ১৪২২ বঙ্গাব্দ, ১১ রবিউস সানি ১৪৩৭ হিজরি। দি ঢাকা টাইমস্ -এর পক্ষ থেকে সকলকে শুভ সকাল। আজ যাদের জন্মদিন তাদের সকলকে জানাই জন্মদিনের শুভেচ্ছা- শুভ জন্মদিন।

kapitan keling mosque

যে ছবিটি দেখছেন সেটি মালয়েশিয়ার মুঘল নির্মাণশৈলীর মসজিদ কাপিতান কেলিং মসজিদ। এটি মালয়েশিয়ার একটি বিখ্যাত মসজিদ।

মালয়েশিয়ায় এর অবস্থান জালান কাপিতান কেলিংয়ে (সাবেক পিট স্ট্রিট)। এটি জর্জ টাউনের সবচেয়ে বড় ঐতিহাসিক মসজিদ।
মসজিদটির বিশেষ বৈশিষ্ট্য হলো, এটি নির্মিত হয় মুঘল স্থাপত্য ঘরানায়। ১৮০১ সালে মসজিদটি নির্মাণ করা হয়। মসজিদটিতে রয়েছে একটি বড় গম্বুজ, কয়েকটি ছোট গম্বুজ ও বেশ বড় একটি মিনার।

তথ্যসূত্রে জানা যায়, এই মসজিদটি নির্মাণ করেন সেই সময়ের মালয়েশিয়ার কেলিং জনগোষ্ঠী। আর এই কেলিং হচ্ছে মালয়েশিয়ায় ভারতীয় বংশো™ভূত মানবগোষ্ঠী। এই জনগোষ্ঠীর প্রধান হচ্ছেন কাপিতান (অর্থাৎ ক্যাপ্টেন)। অর্থাৎ মসজিদের নামকরণও করা হয় ভারতীয় বংশো™ভূত ওই মুসলমান জনগোষ্ঠীর প্রধানের নামানুসারেই।

মসজিদটি প্রতিষ্ঠার দীর্ঘদিন পর ১৯১০ সালে মসজিদটি বিশেষভাবে সংস্কার করা হয়। ১৯৩০ সালে এই মসজিদটি বর্তমান অবয়ব লাভ করে। কিন্তু এটি পুনর্নির্মাণ করা হয়নি। মুঘল স্থাপত্য বৈশিষ্ট্য অবিকল রেখে বড় করা হয়। ২০০৩ সালে এই মসজিদটি নতুন করে সজ্জিত করা হয়। বর্তমানে এই মসজিদটি একটি দৃষ্টিনন্দন ও ঐতিহাসিক মসজিদের একটি।

তথ্য ও ছবি: www.noyadigonto.net/ এর সৌজন্যে।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...