ঝাড়ুদার পদের জন্য ১৯ হাজার এমবিএ পাস আবেদনকারী!

Job-seekers wait in line to register at a career fair held at a school in Hyderabad on May 19, 2012. Over 3,000 people attended the fair. Foreign investors have been turned off the country of 1.2 billion people due to recent regulatory moves by the government, which has stalled on a pro-growth reform agenda aimed at opening up the economy. AFP PHOTO / Noah SEELAM / AFP / NOAH SEELAM

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সমগ্র বিশ্বজুড়েই চলছে বেকারত্বের অভিশাপ। যার প্রামণ মিললো এবার ভারতে। সেখানে ১১৪টি খালি ঝাড়ুদার পদের জন্য ১৯ হাজার এমবিএ পাস আবেদনকারী আবেদন করেছেন!

Job-seekers wait in line to register at a career fair held at a school in Hyderabad on May 19, 2012. Over 3,000 people attended the fair. Foreign investors have been turned off the country of 1.2 billion people due to recent regulatory moves by the government, which has stalled on a pro-growth reform agenda aimed at opening up the economy. AFP PHOTO / Noah SEELAM / AFP / NOAH SEELAM

ভারতের উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের আমরোহায় ১১৪টি ঝাড়ুদার পদ খালি হলে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়। জন্যে এবার চাকরির আবেদন করেছে ১৯ হাজার এমবিএ, বি টেক পাস করা স্নাতক। ঝাড়ুদারের বেতন ১৭ হাজার রুপি কিন্তু কোনো শিক্ষাগত যোগ্যতার প্রয়োজন পড়ে না।

সংবাদ মাধ্যমের কবরে বলা হয়, ঝাড়ুদারের ১১৪টি খালি পদের জন্যে অনলাইনে ফর্ম পূরণ চলছে। এই পদের জন্যে যারা দরখাস্ত জমা দিয়েছেন তাদের অধিকাংশই স্নাতক, স্নাতকোত্তর, বি টেক কিংবা এমবিএ ডিগ্রিধারী।

কিন্তু এই পদের জন্যেও বাছাই প্রক্রিয়া বর্তমানে বন্ধ। এর কারণ হলো ঝাড়ুদার সংগঠন দাবি করেছে, শুধু বাল্মীকি কমিউনিটির অন্তর্ভূক্ত সদস্যদেরই এই চাকরি দিতে হবে।

ভারতের উত্তরপ্রদেশসহ বিশ্বময় বর্তমান সময়ে বেকারত্বের ভয়াবহ প্রকট আকার ধারণ করেছে। ভারতের ঝাড়ুদার পদের জন্য স্নাতক ও স্নাতোকত্তর ডিগ্রিধারীদের আবেদন ঠিক এই চিত্রই ফুটে উঠেছে।

উল্লেখ্য, ইতিপূর্বে, ভারতের পাঞ্জাবের ভাতিন্ডায় পিওন পদের জন্যে এমফিল, এমএসসি এবং বি টেক প্রার্থীরা চাকরির আবেদন করেন। ভাতিন্ডা জেলা আদালতে বর্তমানে চতুর্থ শ্রেণীর কর্মী নিয়োগের জন্যে ১৯টি পদ খালি থাকায় আবেদনপত্র পড়েছে সাড়ে ৮ হাজার। সেখানেও একই চিত্র। চতুর্থ শ্রেণীর পদের জন্য চাকরিতে আবেদন করেছেন এমফিল, বি টেক, এমসিএ, এমএ এবঙ বিএড প্রার্থীরাও!

Advertisements
Loading...