ট্রেন নাকি পাঁচতারা হোটেল?

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ কামরা দেখে সত্যিই বোঝা মুশকিল যে এটি ট্রেন নাকি পাঁচতারা হোটেলের কামরা! আসলেও এটি একটি ট্রেনের কামরা তবে পাঁচতারা হোটেলের মতোই সকল সুযোগ-সুবিধা রয়েছে এখানে!

Hotels or train

এবার ট্রেনের এমন কামরা বানানো হয়েছে যেটির সুযোগ-সুবিধা একেবারে বাড়ির মতোই। তারপর এমনভাবে এটি বানানো হয়েছে যে, এটি পাঁচতারা হোটেলের মতোই মনে হবে! ওই কামরার সুযোগ-সুবিধার মধ্যে থাকবে ঘুম ভাঙাতে অ্যালার্ম, এলইডি রিজার্ভেশন চার্ট, ফ্রি ওয়াই-ফাই পরিষেবা এক কথায় সবই থাকবে এই ‘স্মার্ট’ কোচে। অনেকটা বিমানের পরিষেবার ধাঁচে ঢেলে সাজানো হবে এই স্মার্ট কোচগুলি।

প্লেনের মতো এই ট্রেনের কামরায় থাকবে পানীয় জল, চা এবং কফির মেশিন সবকিছুই। যে কারণে নিজের সুবিধা এবং ইচ্ছে মতোই প্রয়োজনীয় পানীয় সংগ্রহ করতে পারবেন যাত্রীরা।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা গেছে, পরিকল্পনাও রয়েছে এই স্মার্ট রেল কম্পার্টমেন্টে জৈব-শৌচাগার পরিষেবা চালু করার। এই জৈব-শৌচাগার যে অন্য পাঁচটা ট্রেনের শৌচাগারের মতো অপরিচ্ছন্ন হবে না সেটি বলার অপেক্ষা রাখে না।

বলা হয়েছে, পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখার স্বার্থে ট্রেনের শৌচাগারগুলিতে থাকবে ফ্লাশিং সিস্টেম, অটোমেটিক হ্যান্ডক্লিনার এবং নানা ধরনের চকচকে পরিষেবাও। ট্রেনের কামরাগুলি হবে সম্পুর্ণ বাতানুকুল। সেই সঙ্গে এই কামরায় থাকবে ল্যাপটপ এবং মোবাইল চার্জার সুবিধা। সব মিলিয়ে ট্রেনের এই নতুন স্মার্ট কোচ যে কোনও পাঁচতারা হোটেলের কামরাকে টক্কর দেবে তাতে কোনো সন্দেহ নেই। নতুন বছরের রেল বাজেটে এই ধরনের স্মার্ট কোচের প্রস্তাব দেওয়া হবে বলে রেল মন্ত্রণালয় সূত্রে বলা হয়েছে।

আমাদের দেশে ট্রেনে ভ্রমণের অনাগ্রহ রয়েছে সব সময়। তবে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা থাকলে ভিআইপি যাত্রীদের সংখ্যা যেমন বাড়বে তেমনি সাধারণ যাত্রীদের মধ্যেও ট্রেন সম্পর্কে পজেটিভ ধারণা তৈরি হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...