চোখের রোগ গ্লুকোমা সম্পর্কে জেনে নিন

চোখের ভিতরকার তরলের চাপ বৃদ্ধির কারণে গ্লুকোমা হয়ে থাকে

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক॥ যেসব চোখের রোগের কারণে ধীরে ধীরে অজান্তেই আপনার দৃষ্টিশক্তি হ্রাস পেতে পারে সেগুলির মধ্যে একটি হল গ্লুকোমা। রোগটি সম্পর্কে সচেতন হয়ে প্রথম পর্যায়ে চিকিৎসা নিলে দৃষ্টিশক্তি হ্রাস রোধ করা সম্ভব।

গ্লুকোমা কি?

গ্লুকোমা এমন একটি চোখের রোগ যেটির জন্য চোখের অপটিক নার্ভ ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং দৃষ্টিশক্তি ধীরে ধীরে হ্রাস পায়। সাধারণত চোখের ভিতরকার চাপ বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে এই রোগটি দেখা দেয়। ধারাবাহিকভাবে চোখের নার্ভ ক্ষতিগ্রস্ত হতে থাকলে এতে আক্রান্ত ব্যক্তি সম্পূর্ণ অন্ধ হয়ে যেতে পারে। প্রথম পর্যায়ে গ্লকোমা তেমন কোনো লক্ষণ দেখা দেয় না। ফলে আক্রান্ত ব্যক্তির পক্ষে এই সময় রোগটি হয়েছে কিনা তা বোঝা কঠিন হয়ে পড়ে।

কারণ

চোখের ভিতরকার তরলের চাপ বৃদ্ধির কারণেই গ্লুকোমা হয়ে থাকে। চোখের সামনের অংশে অবস্থিত তরল স্বাভাবিকভাবে আবর্তিত না হলে এই সমস্যা হয়ে থাকে। অ্যাকুয়াস হিউমার নামের এই তরল সাধারণত জালের মতো একটি পথের মধ্য থেকে বেরিয়ে আসে। কোনো কারণে এটি বন্ধ হলে ভিতরে তরল জমতে শুরু করে। মূলত এই জন্যই গ্লুকোমা হয়ে থাকে। ঠিক কি কারণে এটি হয়ে থাকে সে সম্পর্কে গবেষকরা নিশ্চিত নন। তবে বংশগত কারণে সমস্যাটি হতে দেখা যায়।

লক্ষণ

  • দৃষ্টিশক্তি হ্রাস পাওয়া
  • চোখ লাল হওয়া
  • বমি বমি ভাব
  • চোখে ব্যথা হওয়া
  • দৃষ্টি সংকুচিত হয়ে যাওয়া

 

প্রতিরোধ ও চিকিৎসা

গ্লুকোমা প্রতিরোধ করার কোনো উপায় নেই। তবে যতো দ্রুত আপনি এর চিকিৎসা করাবেন ততো আপনার দৃষ্টিশক্তি হ্রাস পাওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়। তাই আপনার বংশে কারো গ্লুকোমা থাকলে আপনাকে এ ব্যাপারে প্রথম থেকে সতর্ক থেকে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...