হিটলার সম্পর্কে কিছু তথ্য যা আপনার অজানা

একগুয়েমি মনোভাব ও ডিক্টেটরশীপ মন মানষিকতার কারণে হিটলার অনেকের কাছেই ঘৃণিত ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ হিটলারকে নিয়ে বহু লেখালেখি হয়েছে। হিটলারকে নিয়ে বেশ কিছু বিতর্কও রয়েছে। তবে যারা একচ্ছত্র ক্ষমতাকে মান্য করেন, তাদের জন্য হিটলার একজন আদর্শবান হিসেবেই পরিগণিত হয়ে আসছে। আজ রয়েছে হিটলার সম্পর্কে কিছু তথ্য যা আপনার অজানা।

সংগৃহীত ছবি

অ্যাডলফ হিটলার সম্পর্কে বিভিন্ন সময় নানা কথা প্রকাশ পেয়েছে। একগুয়েমি মনোভাব ও ডিক্টেটরশীপ মন মানষিকতার কারণে হিটলার অনেকের কাছেই ঘৃণিত ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত। আবার যারা একচ্ছত্র ক্ষমতাকে মান্য করেন তাদের কাছে হিটলার একজন আদর্শ ব্যক্তি। দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধের সময় অ্যাডলফ হিটলার ৬ লক্ষ ইহুদি মানুষের মৃত্যুর জন্য দায়ী ছিলেন বলে শোনা যায়। তারপরও তিনি ইতিহাসের সবচেয়ে তথ্যসমৃদ্ধ একজন মানুষ। আমরা বিভিন্ন সময় হিটলার সম্পর্কে অনেক তথ্য দিয়েছি। তবে আজ রয়েছে হিটলার সম্পর্কে কিছু তথ্য যা আপনার এখনও অজানা।

সংগৃহীত ছবি

# হিটলার উৎসাহ-প্রেরণা পাওয়ার জন্য সব সময় তার ডেস্কে ‘হেনরি ফোর্ড’র পট্রেইট রাখতেন।

# মায়ের মৃত্যুর পর এবং আর্ট স্কুল থেকে দ্বিতীয়বারের মতো বিতাড়িত হওয়ার পর হিটলার ছিল একেবারেই গৃহহীন এবং আশ্রয়হীন।

# মূলত হিটলার ছিলেন নিরামিষভোজী। অপরদিকে হিটলার দিনে দুই পাউন্ড পর্যন্ত চকোলেট খেতে পারতেন বলে শোনা যায়।

# হিটলারের শারীরিক ওজন পুরোপুরি যথার্থ ছিলো না বলে এক তথ্যে জানা যায়। মেডিকেলে শারীরিক চেকআপের সময় তিনি জামা কাপড় খুলতে চাইতেন না।

# হিটলারই একমাত্র ব্যক্তি যিনি জার্মানিতে জন্মগ্রহণ না করেও জার্মানির চ্যান্সেলর হয়েছিলেন। তিনি জন্ম নিয়েছিলেন অস্ট্রিয়ায়।

# অনেক ইতিহাসবিদ মনে করেন যে, হিটলার প্রকৃতপক্ষে পারকিনসন রোগে আক্রান্ত ছিলেন।

# ১৯৩৯ সালে শান্তিতে নোবেল পুরস্কারের জন্য হিটলারকে মনোনীত করা হয়।

# হিটলার কখনও কোনো পারফিউম কিংবা সুগন্ধি ব্যবহার করতেন না।

# ১৯৪৫ সালের ৩০ এপ্রিল স্ত্রী ইভা ব্রাউন ও হিটলার একসঙ্গে আত্মহত্যা করেন।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...