চার সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপির জয়

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ অবশেষে সকল জল্পনার অবসান ঘটিয়ে চার সিটি করপোরেশন নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। এ নির্বাচনে বিএনপি দলীয় প্রার্থীদের পক্ষে গণরায় দিয়েছে ভোটাররা। রাজশাহী, সিলেট, খুলনা ও বরিশাল চারটিতেই বিএনপি তথা ১৮ দলীয় জোট সমর্থিত মেয়র প্রার্থীরা বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হয়েছেন।

4 city

চট্টগ্রাম ও কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ধারাবাহিকতায় এই চার সিটিও সরকারি দলের হাতছাড়া হলো জাতীয় নির্বাচনের আগমুহূর্তে। এদিকে সবকটি মেয়র এবং সংখ্যাগরিষ্ঠ কমিশনারের বিজয়ে দেশজুড়ে ১৮ দলীয় জোটের নেতাকর্মীর মধ্যে উল্লাস দেখা দিয়েছে। বিভিন্ন স্থানে গত রাতেই চলছিল আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ।

চার সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিজয়ী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীদের সঙ্গে রাতেই ফোনে শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন বিরোধীদলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়া। এসময় তিনি নিরষ্কুশ জয় পাওয়ায় দলের প্রার্থীদের অভিনন্দন জানান।

রাজশাহী

রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ১৩৭ কেন্দ্রের মধ্যে সবকটির ফলাফলে ১৮ দল সমর্থিত মেয়র প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল (আনারস প্রতীক) ১ লাখ ৩১ ৫৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ১৪ দল সমর্থিত সাবেক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন (তালা প্রতীক) পেয়েছেন ৮৩ হাজার ৭২৬ ভোট। তাদের মধ্যে ভোটের ব্যবধান ৪৭ হাজার ৩৩২।

নির্বাচনি প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে সাবেক মেয়রদের সঙ্গে নিয়ে একসঙ্গে কাজ করবেন বলে জানিয়েছেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের সদ্যবিজয়ী বিএনপি সমর্থিত মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। শনিবার রাতে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হওয়ার পর এক আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়ায় তিনি সংবাদ মাধ্যমকে একথা বলেন। বুলবুল বলেন, নির্বাচনে যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছি তা বাস্তবায়ন করতে পারব বলেই দিয়েছি। আগে যারা মেয়র ছিলেন তাদের নিয়ে কীভাবে রাজশাহীর উন্নয়ন করা যায় সেজন্য কাজ করব। যুব সমাজের জন্য কাজ করব।

সিলেট

সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মোট ১২৮টি ভোট কেন্দ্রের সবগুলোর ফলাফলে ১৮ দলীয় জোট সমর্থিত প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী (টেলিভিশন প্রতীক) ১ লাখ ৭ হাজার ৩৩০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত ও সাবেক দুই বারের মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরান (আনারস প্রতীক) পেয়েছেন ৭২ হাজার ১৭৩ ভোট। আরিফ ৩৫ হাজার ১৫৭ ভোটের ব্যবধানে কামরানকে হারিয়েছেন।

এদিকে চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশের পর বিজয়ী আরিফুল হক চৌধুরীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন বদরউদ্দিন আহমদ কামরান। শনিবার রাতে ভোট গণনা শেষে ফল প্রকাশ করার পর নিজ বাসায় সাংবাদিকদের মাধ্যমে সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান এ অভিনন্দন জানান। কামরান বলেন, সিলেটবাসী এর আগে বারবার আমাকে নির্বাচিত করেছেন। এবার তাদের দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করে নতুন প্রার্থী নির্ধারণ করেছেন। আমি নবনির্বাচিত প্রার্থীকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাচ্ছি।

আরিফুল হক চৌধুরী বিজয়ের পর সিলেট নগরবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে শুকরিয়া আদায় করেছেন। রাত সাড়ে ৯টার দিকে জিন্দাবাজারের একটি বাসা থেকে সিলেটবাসীর প্রতি এ কৃতজ্ঞতা জানান। ফলাফল তার পক্ষে আসার পর থেকেই উৎসুক জনতা তাকে নিয়ে মিছিল করার চেষ্টা করে। কিন্তু ফলাফল প্রকাশের পর কোনো ধরনের মিছিল সভা-সামবেশ করার বিধান না থাকায় তিনি কোনো মিছিলে অংশ নেননি।

খুলনা

খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ২৮৮ কেন্দ্রের মধ্যে সবকটির ফলাফলে ১৮ দল সমর্থিত প্রার্থী বিএনপি নেতা মনিরুজ্জামান মনি (আনারস প্রতীক) ১ লাখ ৮১ হাজার ২৬৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত সদ্যবিদায়ী মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক (তালা প্রতীক) পেয়েছেন ১ লাখ ২০ হাজার ৫৮ ভোট। তাদের ভোটের ব্যবধান ৬১ হাজার ২০৭।

সিটি করপোরেশনের ভোটের মাধ্যমে জনগণ নীরব বিপ্লব ঘটিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন খুলনায় বেসরকারিভাবে সদ্যবিজয়ী বিএনপি সমর্থিত মেয়রপ্রার্থী মনিরুজ্জামান মনি। শনিবার রাতে এক তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, জনগণ যে রায় দিয়েছে আমি তার মর্যাদা রাখব। খুলনা নগরীর উন্নয়নে সবাইকে নিয়ে কাজ করব। তিনি আরও বলেন, সরকার চেয়েছিল ফলাফল তাদের পক্ষে নিতে। কিন্তু বিএনপি নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষ সচেতন ছিল বলে তা সম্ভব হয়নি।

বরিশাল

বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ১০০ কেন্দ্রের মধ্যে সবগুলোর ফলাফলে ১৮ দল সমর্থিত মো. আহসান হাবীব কামাল (আনারস প্রতীক) ৮৩ হাজার ৭৫১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত সদ্য সাবেক মেয়র শওকত হোসেন হিরন (টেলিভিশন প্রতীক) পেয়েছেন ৬৬ হাজার ৭৪১ ভোট। তাদের ভোটের ব্যবধান ১৭ হাজার ১০ ভোট।

বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে নিজের বিজয়কে ‘রাজনৈতিক’ বলে মন্তব্য করেছেন আহসান হাবিব কামাল। নির্বাচনে সব ভোটকেন্দ্রের ফলাফল ঘোষণার পর তিনি সংবাদ মাধ্যমকে এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, এটা স্থানীয় নির্বাচন বটে। এ শহরে বিএনপির প্রভাব বেশি। তারপরেও দেশের সামগ্রিক পরিস্থিতি এ নির্বাচনের বাইরে নয়। আমি রাজনৈতিক কারণেই বিজয়ী হয়েছি।

নগরপিতা হয়ে হিরনের কাছে কোনো ধরনের সহযোগিতা চাইবেন কি না জানতে চাইলে জেলা বিএনপির এ সভাপতি বলেন, প্রশ্নই আসে না। তিনি কি ডাক্তার না ইঞ্জিনিয়ার যে তার কাছে সহযোগিতা চাইতে হবে ভোট সুষ্ঠু হলে আরো বেশি ভোটে বিজয়ী হতেন বলে মন্তব্য করেন কামাল। তিনি জানান, মেয়র হয়ে প্রথমেই মাস্টারপ্ল্যান করে নগরীর পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থার প্রতি প্রথম নজর দেবেন।

উল্লেখ্য, ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে চার সিটিতে গতকাল সকাল ৮টা থেকে বিরতিহীনভাবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়। চার সিটিতেই অধিকাংশ কাউন্সিলর পদে বিএনপি দলীয় প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন বলে জানা গেছে। বিচ্ছিন্ন কিছু গোলযোগ ছাড়া সামগ্রিকভাবে নির্বাচন সুষ্ঠু, অবাধ, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণভাবেই সম্পন্ন হয়েছে। ভোট গ্রহণের জন্য চার সিটির নির্বাচনি এলাকায় গতকাল সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...