১০৫ বছর বয়সেও ব্লগিং করেন ডাগনি কার্লসন!

এই বয়সে এসেও দিব্যি ব্লগ লিখছেন সুইডেনের ডাগনি কার্লসন নামে ওই বৃদ্ধা

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ১০৫ বছর বয়সেও দিব্যি ব্লগিং করেন ডাগনি কার্লসন! শুনতে অস্বাভাবিক মনে হলেও এই বয়সে এসেও তিনি সত্যিই ব্লগিং করছেন সুইডেনের ডাগনি কার্লসন নামে এক বৃদ্ধা নারী!

আরও পাঁচ বছর পূর্বেই শতবর্ষ পার করেছেন তিনি। বর্তমানে বয়স তার ১০৫ পেরিয়েছে। এই বয়সে এসেও দিব্যি ব্লগ লিখছেন সুইডেনের ডাগনি কার্লসন নামে ওই বৃদ্ধা। ডাগনির ব্লগ ফ্যানদের সংখ্যাও তাই অনেক।

এই বিষয়টি নিয়ে তিনি বলেন, ভাবতেই পারি না মাত্র ৯/১০ বছরের খুদে দলও আমার লেখা পড়ে কমেন্ট লিখেছে।

পাঁচ বছর পূর্বে শতবর্ষের জন্মদিনে আত্মীয়রা ডাগনিকে একটি কম্পিউটার উপহার দিয়েছিলেন। সেটা পেয়েই দ্রুত চালানো শিখে নেন তিনি। তারপরই ইন্টারনেট দুনিয়ায় প্রবেশ ঘটে তার। বিভিন্ন সাইট ঘাঁটাঘাঁটি করা নিত্য অভ্যাসে পরিণত হতে খুব বেশি একটা দেরি হয়নি। ক্রমশ ব্লগ দুনিয়ায় প্রবেশ করেছেন ডাগনি। এরপরই শুরু হয় তার প্রকৃত চমক।

বিভিন্ন বিষয়ে ব্লগ লিখে এখন তিনি সুইডেনের একজন নামকরা ব্লগার হিসেবে খ্যাতি পেয়েছেন। ব্লগ দুনিয়ায় তার থেকে সবাই বয়সে ছোট বলেই ধারণা তার। কারণ এতো বয়সে অন্য কেও ব্লগ লিখছেন বলে মনে হয় না।

সকালে ঘুম হতে ওঠার পর কফি ও খবরের কাগজ ছাড়া ডাগনি কার্লসনের মোটেও চলে না। ১০৫ বছর বয়স হয়ে গেলেও তার জীবনীশক্তি বা জানবার ইচ্ছা এখনও তীব্র।

ডাগনি বলেছেন, কাল যে আমার মরণ হতে পারে, সেকথা আমি ভাবি না। মৃত্যু তো একদিন আসবেই। ডাগনির কৌতূহলের বিষয় রয়েছে অনেককিছু। ছোট্ট ফ্ল্যাটের বাইরে কী ঘটছে তা জানতে দিনের অনেকটা সময় ইন্টারনেটেই কাটিয়ে দেন ডাগনি। আর তখনই চলে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তার ব্লগ লেখালেখি।

মজা করে ডাগনি জানিয়েছেন, ব্লগ লেখার সময় কোনও নির্দিষ্ট বিষয়বস্তুর কোনো দরকার নেই- যা মন-প্রাণ চায়, তাই লিখতে পারি৷ তবে আমার ১০৫ বছর বয়স না হলে সেদিকে হয়তো কেও তাকাতোই না।

উল্লেখ্য, বর্তমানে সুইডেনের প্রবীণদের মধ্যে আদর্শ নারী হলেন ব্লগার ডাগনি। বিভিন্ন অনুষ্ঠানেও তাকে সম্মান জানানো হয়। এতে খুব খুশি হন ১০৫ বছর বয়সী এই প্রবীণ নারী ডাগনি।

Advertisements
Loading...