স্কুলের কিচেনে পাওয়া গেলো ৬০ বিষধর সাপ!

ভারতের মহারাষ্ট্র প্রদেশের একটি স্কুল হতে বিষাক্ত সাপ উদ্ধার করা হয়েছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ভারতের মহারাষ্ট্র প্রদেশের একটি স্কুলের কিচেনে পাওয়া গেলো ৬০ বিষধর সাপ! হিংগোলী জেলার জেলা পরিষদ স্কুলের কিচেনে রাসেল’স ভাইপার নামক প্রজাতির বিষাক্ত ওই সাপগুলো পাওয়া যায়।

ভারতের মহারাষ্ট্র প্রদেশের একটি স্কুল হতে ৬০টি বিষাক্ত সাপ উদ্ধার করা হয়েছে। হিংগোলী জেলার জেলা পরিষদ স্কুলের কিচেনে রাসেল’স ভাইপার নামক প্রজাতির বিষাক্ত ওই সাপগুলো পাওয়া যায়। জেলার পাংরা বোখারী গ্রামের ওই স্কুলে একসঙ্গে এতোগুলো বিষধর সাপ পাওয়ায় মুহূর্তে স্কুলজুড়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়ে।

স্কুল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, গত শনিবার স্কুল চলাকালীন সময় রান্না করতে গিয়ে এক মহিলা বাবুর্চি এই সাপগুলো প্রথম দেখতে পান। জ্বালানি হিসেবে যেখানে লাকড়ি রাখা ছিল ঠিক সেখানে এই সাপগুলোকে দেখেন তিনি। প্রথমে তিনি ২টি সাপ দেখতে পান। এরপর যখন কাঠ সরাতে থাকেন তখন সেখান থেকে একে একে বেরিয়ে আসে আরও ৫৮টি সাপ।

স্কুলটির প্রধান শিক্ষক ত্রিয়ামবাক ভোসলে জানিয়েছেন, “সাপগুলো দেখার পর আমরা ভীষণ আতংকিত হয়ে পড়ি। গ্রামবাসীরা লাঠি ও পাথর নিয়ে আসে। তবে আমরা তাদেরকে সাপগুলো হত্যা হতে নিবৃত করি।”

ভিকি ডালাল নামে স্থানীয় এক সাপুড়ে ডাকার পর দুই ঘন্টার প্রচেষ্টায় সাপগুলোকে বোতলে ভরা যায় বলে জানিয়েছেন স্কুলটির প্রধানশিক্ষক।

পরবর্তীতে সাপগুলোকে স্থানীয় বন বিভাগের কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করা হয় বলে জানিয়েছেন স্কুলটির প্রশাসক ভিমরাও বোখারে।

জানা গেছে, ভাইপার পরিবারের একটি প্রজাতির সাপের নাম রাসেল’স ভাইপার। স্কটিশ জীববিজ্ঞানী প্যাট্রিক রাসেল ১৮০০ শতকে ভারত বর্ষে এই প্রজাতির সাপ আবিষ্কার করেন। তার নামানুসারেই এই সাপের নামকরণ করা হয় রাসেল’স ভাইপার। এ ধরণের সাপ এশিয়ার দক্ষিণ পূর্ব অংশে বিশেষ করে ভারত, চীন ও তাইওয়ানে বেশি দেখা যায় বলে জি নিউজের এক খবরে বলা হয়েছে।

Advertisements
Loading...