টেলিফিল্ম ‘কাঁদে মন কাঁদে ভালোবাসা’ তে তৌকীর-মৌসুমীকে দেখা যাবে একসঙ্গে

শ্রাবণ চক্রবর্তী দিপুর রচনায় ও নির্দেশনায় ‘কাঁদে মন কাঁদে ভালোবাসা’ নির্মাণ করা হচ্ছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ টেলিফিল্ম ‘কাঁদে মন কাঁদে ভালোবাসা’ তে তৌকীর-মৌসুমীকে দেখা যাবে একসঙ্গে। বহু বছর পূর্বে টেলিফিল্ম ‘আড়াল’-এ এই জুটিকে দেখা গিয়েছিলো।

টেলিফিল্ম ‘কাঁদে মন কাঁদে ভালোবাসা’ তে তৌকীর-মৌসুমীকে দেখা যাবে একসঙ্গে। বহু বছর পূর্বে টেলিফিল্ম ‘আড়াল’-এ এই জুটিকে দেখা গিয়েছিলো।

শ্রাবণ চক্রবর্তী দিপুর রচনায় ও নির্দেশনায় ‘কাঁদে মন কাঁদে ভালোবাসা’ নির্মাণ করা হচ্ছে। এই টেলিফিল্মে অপু ও বর্ষা চরিত্রে অভিনয় করেছেন তৌকীর আহমেদ এবং জনপ্রিয় অভিনেত্রী মৌসুমী। সম্প্রতি রাজধানীর উত্তরায় শুটিং শেষ হয়েছে।

এই টেলিফিল্ম সম্পর্কে তৌকীর সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন, ‘মৌসুমীর সঙ্গে আমার খুব বেশি একটা কাজ করা হয়ে ওঠেনি। যে কয়েকটি কাজ করেছি তার সঙ্গে তাতে করে আমি বলবো নি:সন্দেহে মৌসুমী একজন বড় মাপের অভিনেত্রী। এই টেলিফিল্মের গল্পের মধ্যে আবেগ রয়েছে। আমার ও মৌসুমীর আন্তরিক অভিনয়ের মধ্যদিয়ে সেই আবেগ যথাযথভাবে তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন টেলিফিল্মটির পরিচালক।’

অপর দিকে মৌসুমী বলেছেন, ‘তৌকীর ভাই একজন ভালো মনের মানুষ। সহশিল্পীকে যথেষ্ট সম্মান দিয়ে কাজ করেন তিনি। অবশ্যই একজন গুণী অভিনেতা ও নির্মাতাও বটে। তার মনটাও অনেক বড়। যে কারণে তার প্রতি অনেক শ্রদ্ধা নিয়েই আমি কাজটা করার চেষ্টা করেছি। দিপুর লেখা গল্পের কারণেই মূলত এই টেলিফিল্মটিতে কাজ করার অনুপ্রেরণা পেয়েছি।’

টেলিফিল্মের গল্পে রয়েছে, বর্ষা হলো ধনী বাবার একমাত্র মেয়ে। ভালোবেসে বিয়ে করে খুব সাধারণ ছেলে অপুকে। সে কারণে বাবার বাড়ি হতে সারা জীবনের জন্য চলে আসতে হয়েছে। সংসার জীবনে পথ চলতে চলতে এক সময় অপুও বর্ষাকে এড়িয়ে চলতে শুরু করে। অপু নিজেকে চিরদিনের জন্য সরিয়ে নিতে চায় বর্ষার জীবন হতে।

ঈদুল আজহার অনুষ্ঠানমালায় কোন একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে প্রচার হবে ‘কাঁদে মন কাঁদে ভালোবাসা’।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...