জার্মান যাজকদের বিরুদ্ধে শিশুদের উপর নির্যাতনের অভিযোগ

দেশটির ১ হাজার ৬৭০ জন যাজক ৩ হাজার ৬৭৭ নাবালকের ওপর ওইসব যৌন নির্যাতন করেছেন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ জার্মান ক্যাথলিক চার্চের ধর্মযাজকরা দেশটির ৩ হাজার ৬০০শ-এর বেশি শিশুকে নানাভাবে নির্যাতন করেছেন বলে ফাঁস হওয়া একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

বিবিসির এক খবরে বলা হয়েছে, ১৯৪৬ হতে ২০১৪ সাল পর্যন্ত সময় প্রায় ৭০ বছর ধরে এইসব নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা যায়, জার্মানির ৩টি বিশ্ববিদ্যালয় মিলে চার্চের ওপর ওই অনুসন্ধানী গবেষণাটি পরিচালনা করে। এর লেখকরা বলেছেন যে, সত্যিকারের নির্যাতনের ঘটনা হয়তো আরও অনেক ব্যাপক হতে পারে। কারণ অনেক তথ্যই ধ্বংস অথবা বিকৃত করা হয়েছে। চার্চের নিজেদের করা তদন্তেই এইসব মর্মান্তিক তথ্য বেরিয়ে এসেছে। আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর ওই প্রতিবেদনটি পূর্ণাঙ্গভাবে প্রকাশ হওয়ার কথা রয়েছে।

ওই প্রতিবেদন অনুযায়ী দেখা যায় যে, দেশটির ১ হাজার ৬৭০ জন যাজক ৩ হাজার ৬৭৭ নাবালকের ওপর ওইসব যৌন নির্যাতন করেছেন। জার্মান সংবাদপত্র স্পিগেল অনলাইন এই বিষয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এই বিষয়ে চার্চের একজন মুখপাত্র বলেছেন, এটি খুবই উদ্বেগের ও অসম্মানজনকও বটে।

বিশ্বের রোমান ক্যাথলিক চার্চে দশকের পর দশক ধরে যে যৌন নির্যাতনের ঘটনার তথ্য প্রকাশ হয়ে আসছে, তারই ধারাবাহিকতায় জার্মানির এই সব তথ্য বেরিয়ে এলো।

ওই প্রতিবেদন অনুযায়ী দেখা যায়, মাত্র ৩৮ শতাংশ অভিযুক্ত নির্যাতনকারীর বিরুদ্ধে হালকা ধরণের শৃঙ্খলা ভঙ্গের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিলো। অথচ প্রতি ৬টি অভিযোগের মধ্যে অন্তত একটিই হলো ধর্ষণের ঘটনা।

এইসব নির্যাতনের শিকার হয়েছে বেশিরভাগই ছেলে শিশু, যাদের বয়স গড়ে ১৩ বছরেরও নীচে। অনেক সময় এই সব নির্যাতনকারী নতুন এলাকায় কাজ করতে গিয়েছেন, যেখানে কাওকে তাদের আগের অপরাধের বিষয়ে কোনও সতর্কও করা হয়নি।

এদিকে জার্মান বিশপদের একটি সম্মেলনে চার্চের মুখপাত্র বিশপ স্টিফান একেরমান বলেছেন, এই গবেষণায় যেভাবে যৌন নির্যাতনের তথ্য বেরিয়ে এলো, তাতে এটি খুবই উদ্বেগজনক ও লজ্জাজনক বটে।

স্পিগেলের এই প্রতিবেদনের বিষয়ে অবশ্য এখনও কোনও মন্তব্য করেনি ভ্যাটিকান। তবে গতকাল (বুধবার) অন্য একটি অনুষ্ঠানের সময় কিভাবে শিশুদের সুরক্ষা নিশ্চিত করা যায়, সেই বিষয়ে আলোচনার জন্য আগামী ফেব্রুয়ারি মাসে বিশপদের একটি সম্মেলন ডেকেছেন পোপ ফ্রান্সিস।

Advertisements
Loading...