অপরাধী ধরার কাজে ব্যবহৃত হবে উড়ন্ত বাইক!

অপরাধীদের ধরতে এমন হোভার মোটরবাইক ব্যবহার করছে দুবাই পুলিশ

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ এখন থেকে অপরাধী ধরার কাজে পুলিশ ব্যবহার করবে উড়ন্ত বাইক! যানজটের কারণে অনেক সময় পুলিশের হাত ফসকে বেরিয়ে যায় অপরাধী। উড়ন্ত বাইক সেইসব অপরাধী ধরতে বিশেষ সাহায্য করবে।

অনেক সময় দেখা যায় সামনেই অপরাধীদের গাড়ি। অথচ তাদের ধরতে সমান তালে পাল্লা দিতে পারছে না মোটরবাইকে থাকা পুলিশ অফিসার, কারণ যানজটের কারণে ফসকে যায় অপরাধী। তাই এমন এক উড়ন্ত বাইক আবিষ্কার করা হয়েছে যে বাইক নিয়ে উড়ে গিয়ে অপরাধীকে ধরা সম্ভব হবে। যেমন হাত ফসকে বেরিয়ে গেছে অপরাধী এমন সময় হঠাৎ করেই গাড়ির ওপর দিয়ে উড়ে সামনে এসে পড়লো বাইকটি। এভাবে ধরে ফেলা হলো অপরাধীদের। সিনেমাতে সচরাচর আমরা উড়ন্ত বাইকের এমন দৃশ্য দেখে অবাক হয়ে পড়ি। আমরা তখন ভাবতাম- বাস্তবেও যদি এমন হতো! তবে এবার সেই উড়ন্ত বাইক দেখা যাবে বাস্তব জীবনেও।

অপরাধীদের ধরতে এমন হোভার মোটরবাইক ব্যবহার করছে দুবাই পুলিশ। জরুরি প্রয়োজনে তারা হোভারবাইক ব্যবহার করতে পারবে ও রাস্তার গতিপ্রকৃতি বা অপরাধীদের অনুসরণ করতে প্রয়োজনে উড়েও যেতে পারবে এই বাইক!

জানা যায়, সম্প্রতি ‘জাইটেক্স টেকনোলজি সপ্তাহ’ শীর্ষক এক সম্মেলনে এই হোভারবাইকটি প্রকাশ্যে এসেছে। এই হোভারবাইক অনেকটা স্পিডার বাইকের মতোই, এগুলো স্কাউট ট্রুপাররা ব্যবহার করেন।

এখন থেকে দুবাইয়ের রাস্তায় দেখা যাবে এই বিশেষ বাইকটি। রাশিয়া হোভার সার্ফের তৈরি এই ক্র্যাফট পুরোপুরি বৈদ্যুতিক ও ৬০০ পাউন্ডের উপর ওজন বহন করতে সক্ষম।

জানা গেছে, এই হোভারবাইকটি প্রতি চার্জে উড়ন্ত অবস্থায় ২৫ মিনিট চালানো যাবে। ‌‘স্করপিয়ন’ নামে এই হোভারবাইক প্রায় ৫ মিটার পর্যন্ত উচ্চতায় উড়তে সক্ষম। প্রতিঘণ্টা এর গতিবেগ ৯৭ কিমি।

হোভারসার্ফের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আলেক্সান্ডার আতামানভ সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, দুবাই পুলিশের সঙ্গে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে তার এই সংস্থা। এক একটি স্করপিয়ন মডেলের দাম এক কোটি টাকা। অন্য একটি সংস্করণ কিনেছে দুবাই পুলিশ। এতে থাকবে নতুন ব্যাটারি এবং সেইসঙ্গে কার্বন ফাইবার ফ্রেম। এটির ওজন প্রায় ১১৪ কিলোগ্রাম।

এখন থেকে অপরাধীদের তাড়া করতে এই বাইকের জুড়ি নেই। খুব সহজেই পলাতক অপরাধীকে বিশেষ করে সড়ক পথে অপরাধীদের ধরতে এই বাইক বিশেষ উপকারে আসবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

Advertisements
Loading...