উইম্ববলডন থেকে সেরেনা’র বিদায়

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ সাড়ে চার মাসে ৩৪টি ম্যাচে টানা অপরাজিত থাকার পরে শক্ত ঘাসের কোর্টে সেরেনা উইলিয়ামসের পরাজয় ঘটলো। ২০০০ সালের পর আন্তর্জাতিক টেনিসে সবচেয়ে লম্বা সময় ধরে অপরাজিত থাকার রেকর্ড সেরেনা উইলিয়ামসের। পাঁচবারের উইম্বল্ডন চ্যাম্পিয়ন সেরেনা এবার শিরোপা পুনরুদ্ধার করতে নেমেছিলেন, যেভাবে খেলছিলেন মনে হচ্ছিলো ষষ্ঠবারের মতো চ্যাম্পিয়ন হতে যাচ্ছেন সেরেনা। তবে চতুর্থ রাউণ্ডে সাবিনা লিসিকির’র কাছে হেরে এবার বিদায় নিতে হল তাকে।


Serena-Williams-Wimbledon-2013-rd-2_2964347

এবারের উইম্বলডন যেনো অঘটনের পসরা সাজিয়ে বসেছে। শারাপোভা, আজারেঙ্কা, ফেদেরার, নাদাল বিদায় নিয়েছেন আগেই। মেয়েদের টেনিস র‍্যাংকিংয়ে এক নাম্বারে থাকা সেরেনা ৬-২, ১-৬, ৬-৪ ব্যবধানে হেরে গেছেন ২৩ বছর বয়স্ক জার্মানির সাবিনা লিসিকির কাছে। হারের কারণ হিসেবে অবশ্য সেরেনা বলেছেন, “আমি ভালো খেলিনি, সর্বোচ্চটাও দেইনি।” লিসিকি সর্বশেষ উইম্বলডনে পাঁচবার খেলে চারবারই কোয়ার্টার ফাইনালে উঠলেন। এদিকে সেরেনা গত বছর জিতেছিলেন উইম্বলডন, ইউএস ওপেন এবং সম্প্রতি জিতেছেন ফ্রেঞ্চ ওপেন, তাই বলা যায় তাকে নিয়ে প্রত্যাশা’র পারদ অনেক উঁচুই ছিলো।

প্রতিপক্ষের প্রশংসা করে সেরেনা ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, “সে দূর্দান্ত খেলেছে, ব্যাপারটা মোটেও অঘটন নয়, নিজের যোগ্যতার প্রমাণ দিয়েই সে হারিয়েছে আমাকে। তার জন্য শুভকামনা।”

সেরেনা’র কোচ প্যাট্রিক বলেছেন, “আপনি সবসময় একই ফলাফল আশা করতে পারেন না। প্রত্যেকটা ম্যাচ কিংবা প্রত্যেকটা বছর একই ফলাফল আসে না। সেরেনা ৩৪ ম্যাচে অপরাজিত ছিলো, তার মানে সে যেকোনো সময় হেরে যেতো। আর সেটা আজকেই হয়েছে!”

এদিকে সেরেনাকে পরাজিত করে কিছুটা হকচকিতই হয়ে গেছেন লিসিকি। তাঁর কথাতেও ধরা পড়লো সে উত্তেজনা, “সেরেনা কঠিন প্রতিপক্ষ ছিলো। আমি ভাবিইনি জয়টা পেয়ে যাবো। এখনও আমার শরীর কাঁপছে, জয়টা সবটুকু দিয়ে অনুভব করতে পারছি। এবার আমার লক্ষ্য ফাইনাল ম্যাচ!”

তথ্যসূত্রঃ abcnews

Advertisements
Loading...