উইম্বল্ডন সেমিফাইনালে মুখোমুখি জেনোভিচ বনাম অ্যাণ্ডি মারে এবং জোকোভিচ বনাম ডেল পোর্তো

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ উইম্বল্ডন পুরুষ এককে দ্বিতীয় রাউণ্ডেই বিদায় নিয়েছেন রাফায়েল নাদাল এবং রজার ফেদেরার। ফলে উইম্বল্ডন কোয়ার্টার ফাইনালে টেনিস বিশ্ব দেখা পেয়েছিলো একগাদা নতুন মুখের। তবে কোয়ার্টার ফাইনালে নিজ নিজ প্রতিপক্ষকে স্পষ্ট ব্যবধানে হারিয়েই সেমিতে উঠে গিয়েছেন মারে এবং জোকোভিচ। সাথে জায়গা করে নিয়েছেন আরও নতুন দুই মুখ জেনোভিচ এবং ডেল পোর্তো।


1045163_385420778226307_1342444044_n

কোয়ার্টার ফাইনালে ইংল্যাণ্ডের অ্যাণ্ডি মারে মুখোমুখি হয়েছিলেন স্পেনের ফার্নান্দো ভার্ডাস্কো’র। প্রথম দিকে বেশ অস্বস্তিতে ভুগলেও দ্রুতই ম্যাচে ফিরে এসে নিজের অভিজ্ঞতার ঝুলি থেকে দারুণ সব শট খেলে প্রতিপক্ষকে পরাজিত করেন মারে। তাঁর নিজের ভাষায়, “কিছু ভুল সিদ্ধান্ত নিয়ে আমি নিজেই বেশ বিপদ ডেকে এনেছিলাম, ভাগ্য ভালো সেগুলো দ্রুত ধরতে পেরেছি। এবং ভার্ডাস্কো এরপর আর আমার সামনে দাঁড়াতে পারেনি।” সরাসরি সেটে ভার্ডাস্কোকে তিনি ৪-৬, ৩-৬, ৬-১, ৬-৪, ৭-৫ গেমে পরাজিত করেন।

অন্যদিকে ইঞ্জুরি নিয়ে খেলেও স্পেনের ডেভিড ফেরারের বিপক্ষে দারুণ জয় পেয়ে উল্লসিত আর্জেন্টাইন ডেল পোর্তো। খেলা শেষে পোর্তো সাংবাদিকদের কাছে নিজের খুশি লুকোতে পারেননি। তিনি বলেন, “উইম্বল্ডনে প্রথমবারের মতো কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে ম্যাচ হেরে যেতে আমি চাইনি। তাই ইঞ্জুরি স্বত্বেও আমি লড়ে গিয়েছি। ঈশ্বর আমার সহায় হয়েছেন। ইঞ্জুরি সাময়িক উপশমের জন্য ডাক্তার আমাকে অ্যাণ্টি-ইনফ্ল্যামোটরিস দিয়েছে।”

খেলার মাঝে পড়ে গিয়ে একবার হাঁটুতে আঘাত লাগিয়েছিলেন তিনি। সেটা নিয়ে বলেন, “ব্যাথা পেয়ে চোখে যতোটা না পানি আসছিলো তার চেয়ে বেশী যন্ত্রণা হচ্ছিলো। আশা করি আগামী ম্যাচের আগেই সুস্থ হয়ে উঠবো।”

প্রথম সেটেই তিনি দুবার ফেরারকে পরাজিত করেন। এরপরই ইঞ্জুরির ব্যাথায় হাঁটুতে আঘাত লাগে তাঁর। খেলার মাঝে দশ মিনিট বিরতি নিয়ে তিনি আবার মুখোমুখি হন ফেরারের। সেন্টার কোর্টে ডেল পোর্তো ৬-২, ৬-৪, ৭-৬ (৫) গেমের স্বল্প সময়ের ব্যবধানে পরাজিত করেন ফেরারকে। পোর্তো আরও বলেন, “আমার শুধুমাত্র হাঁটুতেই সমস্যা, এরচেয়ে কঠিন শারীরিক সমস্যা নিয়েও অনেক গ্রেট লড়ে গেছেন। সফলতা পেতে হলে আপনাকে ত্যাগ স্বীকার করতেই হবে।”

অন্যদিকে এক নাম্বার কোর্টে পোল্যান্ডের জেনোভিচ পরাজিত করেছেন স্বদেশী কুবোটকে। পোল্যান্ডের হয়ে তিনিই প্রথম উইম্বল্ডনে সেমিফাইনালে পা রাখার গৌরব অর্জন করলেন। সংবাদ সম্মেলনে তিনি এককথায় বললেন, “আমি এখন এ পৃথিবীর সবচেয়ে সুখী মানুষ।” কুবোটকে ৭-৫, ৬-৪, ৬-৪ গেমে পরাজিত করেন তিনি।

এবারের উইম্বল্ডনে টিকে থাকা অন্যতম টেনিস তারকা সার্বিয়ান জোকোভিচ ৭(৭)-৬(৫), ৬-৪, ৬-৩ গেমে হারিয়েছেন চেক প্রজাতন্ত্রের টমাস বারডিচকে। ২০১০ সালে উইম্বল্ডন রানার্স আপের পর এই প্রথম তিনি সেমিফাইনালে জায়গা করে নিলেন। সেমিফাইনাল পর্যন্ত আসতে পেরে নিজেকে মুক্ত মনে করছেন বলে মন্তব্য করেছেন জোকোভিচ।

সেমিফাইনালে তিনি মুখোমুখি হচ্ছেন ডেল পোর্তো’র। পোর্তো’র ইঞ্জুরিতে তিনি তাকে সহজে হারানো’র সুযোগ পাবেন কীনা, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে জোকোভিচ বলেন, “সে গত কয়েক বছর ধরে ইঞ্জুরির সাথে লড়াই করছে, কিন্তু এতে তার খেলায় কোনো প্রভাব পড়ছে না। বরং প্রতিবারই ফিরে এসে সে নতুন উদাহরণ তৈরি করছে। এমন একজন প্রতিভাবান পরিশ্রমী খেলোয়াড়ের বিপক্ষে সহজে জয় আসবে ভেবে বোকা হতে চাই না।”

তথ্যসূত্রঃ টেনিসডটকম

Advertisements
Loading...