The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

redporn sex videos porn movies black cock girl in blue bikini blowjobs in pov and wanks off.

ঘনিষ্ঠজনদের দাবি ॥ মিতা নূরের দাম্পত্য জীবন দুর্বিষহ করতে এক চিত্রনায়িকা দায়ী

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ অভিনেত্রী মিতা নূরের মৃত্যু নিয়ে গত কদিন ধরেই চলছে নানা আলোচনা। জননন্দিত অভিনেত্রীর এ অকাল মৃত্যু যেনো কেও মেনে নিতে পারছে না। মিতা নূরের দাম্পত্য জীবন দুর্বিষহ করে তোলার জন্য একজন চিত্র নায়িকা দায়ী এমন খবর বেরিয়েছে।

Mita-noor-8

গতকাল শুক্রবার মিতা নূরের তিন ঘনিষ্ঠজন দেশের শীর্ষস্থানীয় দৈনিক ইত্তেফাকের কাছে এ দাবি জানান। তারা বলেন, মিতা নূর মারা যাওয়ার তিন মাস পূর্বে তার বাসায় উক্ত চিত্র নায়িকাসহ ১০ জনের একটি বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। বৈঠকের স্থান নির্ধারণ করা হয় মিতা নূরের গুলশানের বাসায়। সেখানে চিতই পিঠা খাওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু মিতা নূর জানতেন না যে, ওই ১০ জনের মধ্যে ওই চিত্র নায়িকাও রয়েছেন। যখন তিনি জানতে পারলেন চিত্র নায়িকা তার বাসায় আসবেন তখন তিনি কৌশলে ওই বৈঠকটি স্থগিত করতে সক্ষম হন। বৈঠক স্থগিত করার নেপথ্য কাহিনী ঘনিষ্ঠ কয়েকজন ছাড়া বাকিরা জানতেন না। ঘনিষ্ঠ তিন বান্ধবী বৈঠক বন্ধ করার কারণ সম্পর্কে মিতা নূরের কাছে জানতে চাইলে তিনি কান্নাজড়িত কণ্ঠে তার স্বামীর পরকীয়া প্রেম ও তাকে শারীরিক নির্যাতনের বিস্তারিত কাহিনী বান্ধবীদের কাছে প্রকাশ করেন। মিতা নূর খুব চাপা স্বভাবের ছিলেন।

তিন বান্ধবীকে মিতা নূর জানান, ওই চিত্র নায়িকার সঙ্গে তার ব্যক্তিগত সম্পর্ক ছিল। তিনি মাঝে মাঝে তার বাসায় আসতেন। এ সুযোগ নিয়ে চিত্র নায়িকা তার স্বামীর সঙ্গে পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়েন। এ বিষয়টি জানার পর মিতা নূর স্বামী শাহনূর রহমান রানার কাছে তীব্র প্রতিবাদ করেন। স্বামী মিতা নূরের ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালাতেন। তার গোটা দাম্পত্য জীবনটি চিত্র নায়িকা দুুর্বিষহ করে তোলেন। এ কারণে মিতা নূর ওই চিত্র নায়িকার চেহারার দিকে তাকাতেন না। চিত্র নায়িকা যেখানে যেতেন সেখানে মিতা নূর যেতেন না।

মিতা নূরের স্বামীর কাছ থেকে ওই চিত্র নায়িকা আর্থিক সুযোগ-সুবিধা নিতেন। বিষয়টি মিতা নূর জানতেন। এছাড়া শুধু এই চিত্র নায়িকা পরকীয়ায়ই জড়িত ছিলেন না, মিতা নূরের এক ঘনিষ্ঠ বান্ধবীসহ আরও তিন তরুণীকে তার স্বামীর সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেন। এরপর থেকে মিতা নূরের স্বামী আরও বেপরোয়া হয়ে উঠেন। প্রায়ই মিতা নূরকে শারীরিক নির্যাতন করতেন রানা। ওই চিত্র নায়িকা শুধু মিতা নূরকে ধ্বংস করেননি। ব্যবসায়ী ও ধনাঢ্য ব্যক্তিদের সঙ্গে পরকীয়া প্রেম করে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়া তার অন্যতম পেশা। প্রতিমাসে ওই সব ব্যক্তিদের সঙ্গে এই চিত্র নায়িকা বিদেশ ভ্রমণে যান। মিতা নূরের মত অনেক সংসার তিনি ধ্বংস করেছেন। এই চিত্র নায়িকা অভিনয় ছেড়ে পরকীয়া প্রেমের বাণিজ্য করে মোটা অংকের টাকা কামাচ্ছেন বলে তার তিন বান্ধবী জানান।

এদিকে মহানগর পুলিশের গুলশান জোনের উপ-পুলিশ কমিশনার লুৎফুল কবীর বলেন, মিতা নূরের দাম্পত্য কলহের ওইসব বিষয়গুলোকে সামনে রেখেই তদন্ত চলছে। মিতা নূরের রহস্যজনক আত্মহত্যার গতকাল শুক্রবার ৫ দিন অতিবাহিত হয়। তার আত্মহত্যার কারণ সনাক্ত করতে এখনও পারেনি পুলিশ। পুলিশ বলছে, তারা তাদের স্বাধ্যমতো চেষ্টা চালাচ্ছেন এই আত্মহত্যার বিষয়টির প্রকৃত কারণ উদ্ঘটনের জন্য। পুলিশ বলছে, যে বা যারা মিতা নূরের আত্মহত্যার প্ররোচণাকারী হিসেবে চিহ্নিত হবে- তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...
sex không che
mms desi
wwwxxx