The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

এক মহানুভবতা: খুনিকে আদালতেই জড়িয়ে ধরে ক্ষমা!

প্রতিবেশী কৃষ্ণাঙ্গ যুবককে হত্যা করেছিলেন এক ব্যক্তি

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মহানুভবতা মানুষের বড় একটি গুণ। সৃষ্টিকর্তার নৈকট্য লাভের জন্য অনেকেই মহানুভবতা দেখিয়ে থাকেন। যেমনটি করেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জনৈক ব্যক্তি। খুনিকে আদালতেই জড়িয়ে ধরে ক্ষমা করে দিয়েছেন নিহতের ভাই!

এক মহানুভবতা: খুনিকে আদালতেই জড়িয়ে ধরে ক্ষমা! 1

মহানুভবতা মানুষের বড় একটি গুণ। সৃষ্টিকর্তার নৈকট্য লাভের জন্য অনেকেই মহানুভবতা দেখিয়ে থাকেন। যেমনটি করেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জনৈক ব্যক্তি। খুনিকে আদালতেই জড়িয়ে ধরে ক্ষমা করে দিয়েছেন নিহতের ভাই!

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা যায়, প্রতিবেশী কৃষ্ণাঙ্গ যুবককে হত্যা করেছিলেন এক ব্যক্তি। সেই অপরাধে ১০ বছর কারাদণ্ডও হয় তার। এটি অবশ্য জানা একটি বিষয়। তার তারপর যা ঘটলো, তাতে বিচারক থেকে শুরু করে আইনজীবী সকলেই হতবাক হয়ে যান!

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা যায়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ডালাসের একটি আদালতে রায় ঘোষণার পরই অপরাধীকে জড়িয়ে ধরলেন নিহতের ভাই! তখন বললেন, ‘আর পাঁচ জনের মতো আপনাকেও আমি ভালোবাসি। আমিও চাই না আপনি জেলের মধ্যে পচে মরুন। আমি ব্যক্তিগতভাবে আপনার মঙ্গল কামনা করছি।’

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা যায়, অপরাধী হলেন ডালাসের সাবেক পুলিশ অফিসার আম্বার গাইঘের। নিহত সেই কৃষ্ণাঙ্গ তরুণের নাম হলো বোথাম জিন। আম্বারের বিরুদ্ধে বর্ণবিদ্বেষের জেরে খুনের অভিযোগ আনা হয়েছে। যদিও তরুণী সাবেক অফিসার আম্বারের দাবি ছিলো, ঘটনার দিন তিনি ভুল করে বোথামের ফ্ল্যাটে ঢুকে পড়েছিলেন। ঘটনাক্রমে ২৬ বছরের ওই যুবক তখন মদ্যপান করছিলেন, ফ্ল্যাটের দরজা ছিল একেবারে খোলা।

আম্বারের যুক্তি হলো, ওই ফ্ল্যাটটিকে তিনি তার নিজের ফ্ল্যাট বলে ভুল করেছিলেন। সেখানে কোনও অজ্ঞাতপরিচয় দুষ্কৃতী ঢুকে পড়েছে ভেবেই গুলি চালান তিনি। গুলি লাগে বোথামের বুকে, সঙ্গে সঙ্গেই মারা যান তিনি।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা যায়, আম্বারের শাস্তি ঘোষণার পর আদালতে তখন চরম এক নিস্তব্ধতা নেমে আসে। হঠাৎই বিচারক ট্যামি কেম্পের কাছে বোথামের ভাই ব্র্যান্ড জিন আর্জি জানান যে, ‘জানি না, এটি সম্ভব কি না, একবার কী আমি আম্বারকে জড়িয়ে ধরতে পারি?’ বিচারক কেম্প অনুমতি দিলে ধীরে ধীরে এগিয়ে এসে ভাইয়ের হত্যাকারীকে আলিঙ্গন করলেন তিনি।

তারপর বললেন, ‘আমার পরিবার বা অন্য কারও সামনে এটা কখনও বলে উঠতে পারবো না যে আমি এটা চাই না যে আপনি জেলে যান, আমি চাই আপনি যেনো সেরাটুকুই পান, বোথাম বেঁচে থাকলেও হয়তো এটাই চাইতো। সেটা একমাত্র যিশুর চরণেই নিজেকে সমর্পণের মাধ্যমেই পাওয়া সম্ভব।’

Loading...