The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

মদ্যপ এক রেকুনের মাতলামি!

বনের পশু-পাখিও এবার মদ পান করে মাতলামি শুরু করেছে!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মানুষ মদ পান করে মাতলামি করে সেটি আমরা অনেক দেখেছি। কিন্তু তাই বলে বনের পশু-পাখিও এবার মদ পান করে মাতলামি শুরু করেছে! এমন এক খবর নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। হঠাৎ করেই পথ ভুলে জার্মানির এরফুর্ট নগরীর ক্রিসমাস মার্কেটে ঢুকে পড়ে একটি রেকুন। তারপর এটি ভুলে লোকজনের ফেলে যাওয়া ওয়াইনের কিছুটা পানও করে ওই রেকুন। তারপর শুরু হয় পাগলামী। শেষ পর্যন্ত এক পর্যায়ে রেকুনটি ঘুমিয়ে পড়লে এটিকে প্রাণীদের একটি আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়।

মদ্যপ এক রেকুনের মাতলামি! 1

মানুষ মদ পান করে মাতলামি করে সেটি আমরা অনেক দেখেছি। কিন্তু তাই বলে বনের পশু-পাখিও এবার মদ পান করে মাতলামি শুরু করেছে! এমন এক খবর নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। হঠাৎ করেই পথ ভুলে জার্মানির এরফুর্ট নগরীর ক্রিসমাস মার্কেটে ঢুকে পড়ে একটি রেকুন। তারপর এটি ভুলে লোকজনের ফেলে যাওয়া ওয়াইনের কিছুটা পানও করে ওই রেকুন। তারপর শুরু হয় পাগলামী। শেষ পর্যন্ত এক পর্যায়ে রেকুনটি ঘুমিয়ে পড়লে এটিকে প্রাণীদের একটি আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা যায় যে, এই সময় পথচারীরা রেকুনটির মাতলামির দৃশ্য ভিডিও করেছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওগুলোতে দেখা যায় যে, রেকুনটি টলমল পায়ে চারদিকে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এক নারীর জুতা নিয়ে খেলার পর সে একটি ভবনের সামনে বসে ঘুমিয়েও পড়ে। খবর পেয়ে দমকল কর্মীরা ছুটে এসে সেখান থেকে সেটিকে প্রাণীদের একটি আশ্রয় কেন্দ্রে নিয়ে যায়।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে আরও জানা যায় যে, সম্প্রতি জার্মানির মধ্যাঞ্চলের নগরী এরফুর্টে এই ঘটনা ঘটার পর সিটি পুলিশের এক মুখপাত্র বলেন যে, রেকুনটি ‘নিশ্চয়ই মদপান’ করে ফেলেছিলো। যদিও আদতেও মদ্যপ কিনা তা প্রমাণ করতে হলে শ্বাসযন্ত্রের যে পরীক্ষা সেটি প্রাণীটির করানো হয়নি।

উল্লেখ্য, ইতিপূর্বে ২০১৮ সালের কথা। তখন এরফুর্ট গির্জা থেকে দুইটি সজারু মদ্যপান করলে এক ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। ওই সময় মাতাল সজারুকে সরিয়ে নিয়েছিল পুলিশ। পরে প্রাণীদুটিকে স্থানীয় চিড়িয়াখানায় দিয়ে দেওয়া হয়। মাঝে মধ্যেই এমন কিছু ঘটনা মানুষ বিভ্রান্ত করে। বিশেষ করে বানর বা এই জাতীয় পশুরা মানুষের অনুকরণ করতে বেশি অভ্যস্ত। যে কারণে তারা মানুষের মতোই খেয়ে ফেলে মদ।

Loading...