The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

করোনা ঠেকাতে সাড়ে ৪ লাখ টাকার হীরার মাস্ক! [ভিডিও]

আমেরিকান ডায়মন্ড ও সাধারণ হিরে, দু’রকম হিরে খোদাই করা মাস্কই পাওয়া যাচ্ছে ভারতের সুরাটের একটি গয়নার দোকানে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ করোনা ঠেকানোর জন্য মাস্কের ভূমিকা রয়েছে সেটি আমাদের সকলের জানা। তবে এবার করোনা ঠেকাতে সাড়ে ৪ লাখ টাকার হীরার মাস্ক ব্যবহার করা হলো!

করোনা ঠেকাতে সাড়ে ৪ লাখ টাকার হীরার মাস্ক! [ভিডিও] 1

সোনার মাস্ক পরে মাত্র কয়েকদিন আগেই তাকে লাগিয়ে দিয়েছিলেন ভারতের পুণের এক বাসিন্দা। এবার ভারতের সুরাটের একটি গয়নার দোকানে পাওয়া বিক্রি হচ্ছে হীরার তৈরি মাস্ক! আমেরিকান ডায়মন্ড ও সাধারণ হিরে, দু’রকম হিরে খোদাই করা মাস্কই পাওয়া যাচ্ছে সুরাটের ওই গয়নার দোকানটিতে। দোকানের মালিক দীপক চোকসি জানিয়েছেন যে, হীরার ওই মাস্কের সঙ্গে থাকছে সোনার ব্যবহারও।

ওই দোকানের মালিক জানিয়েছেন যে, সম্প্রতি তাদের দোকানে আসেন এক ক্রেতা। লকডাউন উঠে যাওয়ায় তার বাড়িতে ঘরোয়া অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিয়ে সম্পন্ন হওয়ার কথা। তাই বর কনের জন্য একটু অন্য ধরনের মাস্ক বানিয়ে দেওয়ার কথা বলেন ওই ক্রেতা। গয়নার দোকানের মালিক বলেন, ‘ওই ক্রেতার চাহিদার কারণে আমরা আমাদের ডিজাইনারকে বলি অন্য ধরনের মাস্ক বানিয়ে দিতে। তখনই হিরে দিয়ে মাস্ক বানানোর কথা মাথায় আসে আমাদের। ওই ক্রেতারও এই মাস্ক খুব পছন্দ হয়।’

দু’ধরণের হীরার মাস্ক রয়েছে সুরাটের ওই দোকানটিতে। আমেরিকান ডায়মন্ড খোদাই করা মাস্কের দাম দেড় লাখ রুপি (যা বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা)। অপরদিকে আসল হীরা খোদাই করা মাস্কের দাম প্রায় ৪ লাখ রুপি (বাংলাদেশী টাকায় যা দাঁড়াচ্ছে প্রায় সাড়ে ৪ লাখ টাকা)!

ওই হীরার মাস্ক নির্মাতা জানিয়েছেন, মাস্কের কাপড়ের ক্ষেত্রে সরকারের গাইডলাইন মেনেই তৈরি করা হয় ওই মাস্ক। মাস্ক নির্মাতা আরও বলেছেন, প্রয়োজনে ওই মাস্ক হতে এইসব হীরা খুলে নিয়ে অন্য গয়নাও বানাতে পারবেন ক্রেতারা ইচ্ছা করলে। দোকানের মালিক নিশ্চিত যে, এই করোনাকালে যাদের বাড়িতে বিয়ে হচ্ছে এই মাস্ক তাদের পছন্দ হবেই। গয়নার পাশাপাশি হীরা খচিত মানানসই মাস্কও কিনবেন ক্রেতারা। তাই বেশ কিছু মাস্ক ইতিমধ্যেই তারা তৈরিও করে রেখেছেন।

দেখুন ভিডিওটি

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...