The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

করোনার অভিজ্ঞতা জানালেন অভিনেত্রী পপি

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কাপ্রাপ্ত চিত্রনায়িকা সাদিকা পারভীন পপি ২২ জুলাই করোনা আক্রান্ত হন। প্রায় একমাস বাসায় চিকিৎসা নেওয়ার পর বর্তমানে সম্পূর্ণ সুস্থ্য। করোনা থেকে সুস্থ্য হয়ে ফিরে এসে অভিজ্ঞতা জানালেন তিনি।

করোনার অভিজ্ঞতা জানালেন অভিনেত্রী পপি 1

২২ জুলাই করোনা আক্রান্ত হন। প্রায় একমাস বাসায় চিকিৎসা নেওয়ার পর বর্তমানে সম্পূর্ণ সুস্থ্য। দুবার করোনা টেস্ট করার পর করোনা নেগেটিভ রেজাল্ট পেয়েছেন তিনি। পপি রাজধানীর ইস্কাটনের বাসায় ডাক্তারের পরামর্শে সম্পূর্ণ বিশ্রামে রয়েছেন।

করোনামুক্ত হয়ে পপি বলেছেন, ‘শুরুতে আমার শ্বাসকষ্ট হতো। ভেবেছিলাম হয়তো মরেই যাবো! ভয়ে মাঝেমধ্যে ভেঙেও পড়তাম। তারপর সবার মানসিক সাপোর্টে মনোবল শক্ত করে সার্বক্ষণিক চিকিৎসকের পরামর্শ মেনেই ওষুধ খেয়েছি। সর্বোপরি একটা নিয়মের মধ্যে সময় পার করেছি। যে কারণেই আবার সুস্থ্য হয়ে ফিরেছি।’

পপি আরও বলেন, করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর মাঝেমধ্যে শরীর প্রচণ্ড দুর্বল হয়ে গেছে, আবার একদিন পরেই তা স্বাভাবিকও হয়েছে। তবে দুর্বলতা কাটাতে চিকিৎসকের পরামর্শে ভিটামিন এবং পুষ্টিকর খাবারও খেয়েছি।

আক্রান্ত হওয়ার পর পপি যে সমস্যাগুলোয় ভুগছেন তার মধ্যে ছিল গলাব্যথা ও শ্বাসকষ্ট। তবে নিয়মিত চিকিৎসকের পরামর্শ এবং পুষ্টিকর খাবারের কারণেই তিনি করোনামুক্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

করোনায় আক্রান্ত হওয়ার সময় পপি ছিলেন তার নিজ বাড়ি খুলনার খালিশপুরে। করোনার আগে সেখানে বেড়াতে গিয়ে লকডাউনে আটকে গিয়েছিলেন পপি। ওই সময় পপি স্থানীয় মানুষদের ত্রাণ দিতে ছুটেছেন তার এলাকার বিভিন্ন স্থানে। ধারণা করা হচ্ছে যে, সেখান থেকেই তিনি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন।

উল্লেখ্য, চিত্রনায়িকা পপি লাক্স আনন্দ বিচিত্রার সুন্দরী প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়ে পরিচিতি লাভ করেন। তারপর ১৯৯৭ সালে সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত ‘আমার ঘর আমার বেহেশত’ ছায়াছবিতে অভিনয়ের মধ্যদিয়ে চলচ্চিত্রে প্রবেশ করেন তিনি। তারপর ১৯৯৮ সালে রিয়াজের বিপরীতে বিদ্রোহ চারিদিকে, ১৯৯৯ সালে মান্নার বিপরীতে ‘কে আমার বাবা’ এবং ‘লাল বাদশাহ’ চলচ্চিত্র তার ব্যাপক জনপ্রিয়তা এনে দেয়। তিনি অভিনয় করেছেন দেশের জনপ্রিয় চিত্রনায়কদের বিপরীতে।

তথ্যসূত্র: https://www.somoynews.tv

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...