The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

বিয়ার খাওয়ার অপরাধে জরিমানা প্রায় ৫‌ লক্ষ টাকা!

বিদেশীদের কাছে বিয়ার খুব সাধারণ একটি বিষয়

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সুরাপ্রেমীদের অনেকের পছন্দের পানীয়ের তালিকায় থাকে বিয়ার। বিশেষ করে ইউরোপের দেশগুলিতে মূলত বিয়ার পানেই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন তারা। তবে এবার বিয়ার খাওয়ার অপরাধে জরিমানা গুণতে হয়েছে প্রায় ৫‌ লক্ষ টাকা!

বিয়ার খাওয়ার অপরাধে জরিমানা প্রায় ৫‌ লক্ষ টাকা! 1

বিদেশীদের কাছে বিয়ার খুব সাধারণ একটি বিষয় হলেও সেই পছন্দের পানীয় খেতে গিয়েই যদি পুলিশের হাতে আটক হয়ে জরিমানা দিতে হয় তাহলে? হ্যাঁ, শুনতে অবাক লাগলেও এমনই অভিজ্ঞতা হয়েছে ব্রিটেনের জনৈক ব্যক্তির। হেনরি ম্যাকার্থি নামে ওই ব্যক্তির বয়স ৭৯ বছর! ৫ হাজার পাউন্ড অর্থাৎ বাংলাদেশী মুদ্রায় প্রায় ৫ লক্ষ টাকা জরিমানা দিতে হবে তাকে। যদিও এক্ষেত্রে ঘটনায় পুরোপুরি দোষী অবশ্য তিনিই। একেবারে দায়িত্বজ্ঞানহীনের মতো কাজ করার জন্যই ওই টাকা জরিমানা করা হয় তাকে।

করোনা সংক্রমণে বিশ্বের ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো ব্রিটেন। বর্তমানে ধীরে ধীরে সবকিছু স্বাভাবিক হওয়ার পথেই এগোচ্ছে। তবে সংক্রমণ যাতে করে না ছড়ায়, সেজন্য জারি করা হয়েছে একাধিক বিধিনিষেধ। জানা গেছে, হেনরি নিজেও আক্রান্ত ছিলেন করোনা ভাইরাসে। নিয়মমাফিক তার সেলফ আইসোলেশনে থাকার কথাও ছিল। তবে বিয়ার খাওয়ার ‘‌লোভ’ সামলাতে না পেরে বেরিয়ে পড়েন বাড়ি হতে। একেবারে ক্র্যাবি জ্যাক নামে একটি পাবে গিয়ে বিয়ার কিনে তা খেতেও শুরু করে দেন হেনরি। তবে দুর্ভাগ্যবশত ধরা পড়ে যান তিনি। এরপর নিজের দোষ স্বীকার করলেও আদালত তাকে ওই টাকা জরিমানা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

এ সম্পর্কে পুলিশ জানিয়েছে, হেনরির সেলফ আইসোলেশনে থাকার কথাই ছিল। তিনি নিয়ম মানছেন কি না দেখতে হঠাৎই তার বাড়ি যায় পুলিশ। তবে সেখানে ওই ব্যক্তির গাড়ি দেখতে না পেয়েই সন্দেহ হয় আধিকারিকদের। এরপরই খোঁজ শুরু হয় তার। দেখা যায় যে, একটি বিয়ারের পাবের সামনে তার গাড়িটি রয়েছে। তারপরই হাতেনাতে পাব থেকে ওই ব্যক্তিকে পাকড়াও করেন আধিকারিকরা। এরপরই তাকে এই সাজা শোনানো হয়। অর্থাৎ একটি বিয়ার খাওয়ার অপরাধে প্রায় পাঁচ লক্ষ টাকা জরিমানা গুণতে হলো তাকে!‌‌

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...