The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ঘুমানোর আগে দোয়া পড়লে গোনাহ মাফ হবে

আল্লাহ তাআলা আমাদের গোনাহমুক্ত জীবন দান করুন- আমিন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ গোনাহ থেকে মুক্তির লক্ষ্যে অনেক জিকির, তাসবিহ এবং দোয়ার কথা বলেছেন বিশ্বনবী মুহাম্মদ (সা.)। এসব দোয়ার মধ্যে এমন একটি দোয়া রয়েছে, যে দোয়াটি বিছানায় ঘুমাতে গিয়ে শুয়ে পড়লে সমুদ্রের ফেনা পরিমাণ গোনাহ মাফ হয়ে যায়।

ঘুমানোর আগে দোয়া পড়লে গোনাহ মাফ হবে 1

হাদিসে এসেছে যে-

নবী করিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন যে, ‘যে ব্যক্তি বিছানায় শুয়ে এই দোয়াটি পড়বে, তার গোনাহগুলো মাফ হয়ে যাবে; যদিও তা সমুদ্রের ফেনা সমান হয়ে থাকে।

দোয়াটি হলো:
لَا إِلَهَ إِلَّا اللَّهُ وَحْدَهُ لَا شَرِيكَ لَهُ ، لَهُ الْمُلْكُ وَلَهُ الْحَمْدُ وَهُوَ عَلَى كُلِّ شَيْءٍ قَدِيرٌ ، لَا حَوْلَ وَ لَا قُوَّةَ اِلَّا بِاللهِ سُبْحَانَ اللهِ وَالْحَمْدُ للهِ وَ لَا اِلَهَ اِلَّا اللهُ وَاللهُ اَكْبَرُ
বাংলায় উচ্চারণ : ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহদাহু লা শারিকা লাহু; লাহুল মুলকু ওয়া লাহুল হামদু ওয়া হুয়া আলা কুল্লি শাইয়িন ক্বাদির। লা হাওলা ওয়া লা কুওওয়াতা ইল্লা বিল্লাহি। সুবহানাল্লাহি ওয়াল হামদু লিল্লাহি ওয়া লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াল্লাহু আকবার।’

অর্থ হলো : ‘আল্লাহ ব্যতিত সত্যিকারের কোনো উপাস্য নেই। তাঁর কোনো অংশীদার নেই। তাঁর জন্য রাজত্ব এবং তাঁর জন্যই সব প্রশংসা ও তিনি সব কিছুর উপর ক্ষমতাবান। আল্লাহ ছাড়া কোনো উপায় ও সামর্থ্য নেই। আল্লাহ পবিত্র ও তাঁর জন্যই সব প্রশংসা। আল্লাহ ছাড়া কোনো সত্যিকারের ইলাহ নেই এবং আল্লাহ সবচেয়ে মহান।’ (ইবনু হিব্বান, ইবনু আবি শায়বা)

তাছাড়াও ঘুমানোর আগে রয়েছে আরও একাধিক দোয়া। যেসব দোয়া পড়লে যেমন গোনাহ মাফ হয়ে যায়, দোয়া কবুল হয়, শান্তিপূর্ণ আরামদায়ক ঘুমও হয়। আরও অনেক মর্যাদাপূর্ণ ফজিলত লাভ করা যায়।

সুতরাং মুমিন মুসলমানের উচিত হলো, ঘুমানোর সময় বিছায় শুয়ে উল্লেখিত দোয়াটি পড়ে নেওয়া। আল্লাহ তাআলা এই দোয়ার বরকতে সমুদ্রের ফেনা সমপরিমাণ গোনাহও ক্ষমা করে দেন।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে নিয়মিত রাতের এই আমলটি যথাযথভাবে আদায় করে হাদিসে ঘোষিত ফজিলত এবং মর্যাদা লাভের তাওফিক দান করুন, তিনি আমাদের গোনাহমুক্ত জীবন দান করুন- আমিন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...