The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

দিনে ২০টি রুটি খেয়েও শৌচাগারে যাওয়া লাগে না ১৮ মাস!

ভারতের মধ্যপ্রদেশের মোরেনা জেলার পুরা কা সাবজিতের বাসিন্দা মনোজ চান্ডিলের ছেলে আশিস (১৬)

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ আমরা সবাই জানি প্রাকৃতিক প্রয়োজন পূরণ ছাড়া কোনো মানুষ কখনও বাঁচতে পারে না। তবে এবার এমন এক ব্যক্তির খোঁজ পাওয়া গেছে যিনি দিনে ২০টি রুটি খেয়েও বিগত ১৮ মাস ধরে টয়লেট করেন না!

দিনে ২০টি রুটি খেয়েও শৌচাগারে যাওয়া লাগে না ১৮ মাস! 1

ভারতের মধ্যপ্রদেশের ১৬ বছর বয়সি এক কিশোর একটানা ১৮ মাস শৌচাগারে যান না। অথচ ওই কিশোর দিনে ১৮ হতে ২০টি রুটি খান নিয়মিত। চিকিৎসকরাও ধরতে পারছেন না তার কী ধরনের রোগ হয়েছে।

আশিস চান্ডিল নামে ওই কিশোরের অদ্ভুত এক রোগের কথা জানতে পেরে অবাক বাড়ির সবাই। ইতিমধ্যেই দুশ্চিন্তায় চিকিৎসকদের পরামর্শও নিয়েছেন। তবে তাতেও কোনো সুরাহা হয়নি।

ভারতীয় গণমাধ্যমের এক খবরে জানা যায়, দেশটির মধ্যপ্রদেশের মোরেনা জেলার পুরা কা সাবজিতের বাসিন্দা মনোজ চান্ডিলের ছেলে আশিস (১৬)। দীর্ঘ ১৮ মাস ধরে অদ্ভুত এক অজানা রোগে ভুগছিল সে। সারাদিন প্রচুর খাওয়াদাওয়া করলেও কখনই শৌচাগারে যেতে হয়নি তাকে। তবে তারজন্য আবার কখনও শরীরও খারাপ হয়নি তার!

ছেলেটি দিনে অন্তত ১৮ হতে ২০টি রুটি খাচ্ছেন। তা সত্ত্বেও শৌচাগারে যাওয়া লাগেনা তার। বিষয়টি দেখে দুশ্চিন্তায় পড়েন আশিসের বাবা মনোজ এবং পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা। তারপর একাধিক চিকিৎসকের স্মরণাপন্ন হন তারা। চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যাওয়া হয় আশিসকে। একাধিক পরীক্ষাও করা হয়।

তবে কোনো কিছুতেই তার কোনো রোগ ধরা পড়েনি,‌ বিষয়টি মোটেও বুঝতে পারছেন না চিকিৎসকরা। ভবিষ্যতে ছেলের বড় কোনো অসুখ নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছে গোটা পরিবার। এমতাবস্থায় চিকিৎসকরা আরও নানান পরীক্ষার কথা জানিয়েছেন। তাদের বক্তব্য হলো, সব দিক পরীক্ষা না করলে কোনো সম্ভাবনার কথা জানানো মোটেও উচিত হবে না।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...