The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

দেওয়ানবাগী পীরের ইন্তেকাল

আগামীকাল (মঙ্গলবার) বাদ যোহর নামাজে জানাজা শেষে তাঁকে সমাহিত করা হবে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ রাজধানীর মতিঝিলের দেওয়ানবাগ দরবার শরিফের পীর মাহবুবে খোদা মা. আ. দেওয়ানবাগী পীর (৭০) আজ (সোমবার) ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

দেওয়ানবাগী পীরের ইন্তেকাল 1

আজ সোমবার (২৮ ডিসেম্বর) ভোর ৬টা ৪৮ মিনিটে তিনি ইন্তেকাল করেছেন। সকালে দেওয়ানবাগ দরবার শরীফ থেকে প্রেরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

দেওয়ানবাগীর প্রকৃত নাম মাহবুব-এ খোদা। তিনি ১৯৪৯ সালের ১৪ ডিসেম্বর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আশুগঞ্জ উপজেলার বাহাদুরপুর গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবার নাম সৈয়দ আবদুর রশিদ সরদার। মাতার নাম সৈয়দা জোবেদা খাতুন। ৬ ভাই, ২ বোনের মধ্যে তিনিই সবার ছোট।

নিজ এলাকার তালশহর কারিমিয়া আলিয়া মাদ্রাসা হতে ফাজিল পর্যন্ত পড়াশুনা করেন মাহবুব-এ খোদা। তারপরে ফরিদপুরে চন্দ্রপাড়া দরবারের প্রতিষ্ঠাতা আবুল ফজল সুলতান আহমেদ চন্দ্রপুরীর (রহ:) হাতে বাইয়াত নেন। তারপর পীরের মেয়ে হামিদা বেগমকে বিয়ে করেন এবং শ্বশুরের কাছ থেকেই খেলাফত লাভ করেন।

সেখান থেকে নিজেই নারায়ণগঞ্জে এসে দেওয়ানবাগ নামক স্থানে একটি দরবার গড়ে তোলেন এবং পরবর্তীতে সুফি সম্রাট পরিচয়ে অধিষ্ঠিত হন মাহবুব-এ খোদা। আস্তে আস্তে তার অনুসারির সংখ্যাও বাড়তে থাকে। এরপর মতিঝিলের ১৪৭ আরামবাগে স্থায়ী দরবার গড়ে তোলেন এবং সেখানেই কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিলেন।

এদিকে দেওয়ানবাগ দরবার শরিফের পীর মাহবুবে খোদা মা. আ. এর মৃত্যু খবর ছড়িয়ে পড়লে ভক্তদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। আগামীকাল (মঙ্গলবার) বাদ যোহর নামাজে জানাজা শেষে তাঁকে সমাহিত করা হবে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...