The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

এই ঐতিহাসিক মসজিদে ৭০ জন নবী নামাজ আদায় করেছেন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ শুভ সকাল। শুক্রবার, ৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১ খৃস্টাব্দ, ২২ মাঘ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২২ জমাদিউস সানি ১৪৪২ হিজরি। দি ঢাকা টাইমস্ -এর পক্ষ থেকে সকলকে শুভ সকাল। আজ যাদের জন্মদিন তাদের সকলকে জানাই জন্মদিনের শুভেচ্ছা- শুভ জন্মদিন।

এই ঐতিহাসিক মসজিদে ৭০ জন নবী নামাজ আদায় করেছেন 1

যে মসজিদটি আপনার দেখতে পাচ্ছেন সেটি ঐতিহাসিক আল খায়েফ মসজিদ। এটি খুবই পরিচিত একটি মসজিদ। বিশেষ করে হাজিদের কাছে। এই মসজিদ অন্যতম ঐতিহাসিক একটি স্থান।

পবিত্র মক্কা নগরী হতে প্রায় ৮ কিলোমিটার দূরে মিনা। হজ পালনকালে এখানেই হাজিরা তাঁবু করে অবস্থান গ্রহণ করেন এবং হজের কিছু আনুষ্ঠানিকতা তখন সম্পন্ন করেন।

শয়তানের প্রতীকী স্তম্ভে কঙ্কর নিক্ষেপ হজের আনুষ্ঠানিকতার মধ্যে একটি অন্যতম। ওই কঙ্কর নিক্ষেপের স্থানে এই ঐতিহাসিক ‘মসজিদে খায়েপ’ অবস্থিত। এই মসজিদের ইতিহাস থেকে জানা যায় যে, এই মসজিদে ৭০ জন নবী নামাজ আদায় করেছেন।

মসজিদটির অবস্থান সত্তর পাহাড়ের বিপরীত দিকের পাহাড়ের ঠিক অদূরে। বিশাল এই মসজিদটি হাজিদের মনে করিয়ে দেয় ইতিহাসের অনেক অজানা ঘটনা।

বর্ণিত রয়েছে যে, হজরত রাসূলুল্লাহ (সা.) এই মসজিদে নামাজ আদায় করে এবং বলেছেন, এখানেই সত্তরজন নবী সমাহিত হয়েছেন। নবী করিম (সা.) বিদায় হজে মসজিদে খায়েফে নামাজও পড়েছেন। এই মসজিদের অনেক ফজিলত হাদিস ও ইতিহাসের গ্রন্থসমূহে উল্লেখ রয়েছে। বিশাল এই মসজিদের উচুঁ মিনারগুলো বেশ দূর থেকে পাহাড়ের চূড়ার সঙ্গে যেনো পাল্লা দিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছে। পাহাড়ের চেয়ে নিচু ও সমূদ্রপৃষ্ঠ হতে উঁচু স্থানকে আরবি পরিভাষায় বলা হয় খায়েফ। আবার দুই পাহাড়ের মধ্যবর্তী উপত্যকাসম ভূমিকেও খায়েফ বলে থাকে আরবরা। খায়েফ মসজিদ হচ্ছে মক্কার কাফেরদের বিরুদ্ধে মুসলমানদের বিজয়ের এক স্মৃতিচিহ্ন হিসেবে পরিগণিত হয়ে থাকে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...