The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

পর্ন সাইট খুললেই তথ্য চলে যাবে পুলিশের কাছে!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ পুরো বিশ্ব বর্তমানে ইন্টারনেটের কারণে অনেক সুযোগ সুবিধার মধ্যে আসলেও অবাধ ইন্টারনেট ব্যবহারের কারণে কিছু সমস্যাও সৃষ্টি হয়েছে। যেমন অপ্রাপ্ত বয়ষ্করা পর্ন সাইট খুলছে অবাধে। তাই ভারতের একটি রাজ্যে এমন ব্যবস্থা করা হয়েছে যে, পর্ন সাইট খুললেই তথ্য চলে যাবে পুলিশের কাছে!

পর্ন সাইট খুললেই তথ্য চলে যাবে পুলিশের কাছে! 1

ঘরে বা অফিসে বসে ইন্টারনেটের মাধ্যমে সহজেই বিশ্বের সকল খবর হাতের মুঠোয় চলে আসছে। ব্যবসা-বাণিজ্যের পাশাপাশি একে-অপরের সঙ্গে সহজেই যোগাযোগও করা যাচ্ছে। তবে এই সহজের কিছু খারাপ দিকও রয়েছে। যেমন শিশু-কিশোরদের মধ্যে বিপথগামী হওয়ার মাত্রাটা অনেক বেড়ে গেছে। শিশু-বা কিশোররা অবাধে খুলে ফেলছে পর্ন সাইট যা সমাজকে ক্রমেই অধপতনের দিকে নিয়ে যাচ্ছে।

ইন্টারনেটে অবাধেই পর্ন সাইট খুলছেন অপ্রাপ্ত বয়ষ্করা। ইন্টারনেটে পর্ন সাইট কারা খুলছেন তা নজরদারি করবে এবার ভারতের উত্তর প্রদেশ সরকার।

উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের এই রাজ্যে নারীদের ওপর সহিংসতা কমাতে এই ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন। উত্তরপ্রদেশ পুলিশের পক্ষ হতে একটি সংস্থাকে এই নজরদারির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

ভারতের দৈনিক আজকালের খবরে জানা গেছে, ‘উম্ফ’ নামে একটি সংস্থাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। যারা উত্তর প্রদেশ রাজ্যে ইন্টারনেটে সার্চ করা তথ্যাদি বিশ্লেষণ করবেন। কোনও ব্যক্তি যদি কখনও পর্ন দেখেন, সেই তথ্য অটোমেটিকলি জমা পড়বে বিশ্লেষক দলের নথিতে। এই সংক্রান্ত একটি সতর্কবার্তাও পাঠানো হবে ওই ব্যক্তিকে।

ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে আরও বলা হয়েছে, কেও পর্ন সাইট খুললেই সেই তথ্য চলে আসবে পুলিশের কাছে। ভবিষ্যতে তা নিয়ে ঝামেলায় পড়তে হতে পারে বলেও জানানো হয়। এছাড়াও নারীর সুরক্ষার জন্য উত্তর প্রদেশ পুলিশ একটি বিশেষ দলও গঠন করেছে। যার নাম দেওয়া হয়েছে ‘ইউপি উইমেন পাওয়ারলাইন ১০৯০’।

উল্লেখ্য, শুধু ভারত নয়, বর্তমানে এমন সমস্যা দেখা দিয়েছে বাংলাদেশসহ পুরো বিশ্বেই। ইন্টারনেটের কারণে শিশু-কিশোররা যেমন অনেক কিছু শিখতে পারছে, ঠিক তেমনি অবাধ ইন্টারনেট ব্যবহারের কারণে পর্ন সাইটেও তারা ঢুকে পড়ছে। এটি রোধ করা দরকার।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...