The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

বিশ্বের বৃহত্তম এবং ভয়ঙ্কর লিফট!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ অনেক রকম লিফট রয়েছে। তবে আজ রয়েছে বিশ্বের বৃহত্তম এবং ভয়ঙ্কর লিফটের কথা! যা দেখলে আপনিও চমকে যাবেন।

বিশ্বের বৃহত্তম এবং ভয়ঙ্কর লিফট! 1

অনেক রকম লিফট রয়েছে। তবে আজ রয়েছে বিশ্বের বৃহত্তম এবং ভয়ঙ্কর লিফটের কথা! যা দেখলে আপনিও চমকে যাবেন।

পাহাড়ে চড়া মানুষের এক ধরনের নেশা। অনেকেই চান বিশ্বের শীর্ষ চূড়াটি জয় করে ইতিহাস রচনা করার জন্য। শীর্ষ স্থানে চড়ে সেখান থেকে প্রকৃতি দেখতে চান। আপনিও যদি তেমনটি করতে চান তাহলে আপনাকে যেতে হবে চীনে। আপনাকে উঠতে হবে চীনের পর্যবেক্ষণ লিফটে।

এই লিফটকে বলা হয়ে থাকে বিশ্বের ভয়ঙ্করতম একটি লিফট। চীনের ঝানজিয়াজি ফরেস্ট পার্কে অবস্থিত ইউনেস্কো ঘোষিত বিশ্ব ঐতিহ্যের মধ্যে পড়ে এটি। এই লিফটের নাম ‘হান্ড্রেড ড্রাগন স্কাই লিফট’। দর্শনার্থীদের এটি মাত্র ২ মিনিটের মধ্যে নিয়ে যেতে পারে ১ হাজার ৭০ ফুট (৩৬২ মিটার) উপরে। একসঙ্গে ১ হাজার ৪০০ যাত্রী ‍নিয়ে চড়তে পারে এই লিফটটি।

এই বিষয়ে চীনা সংবাদ মাধ্যম ‘পিপলস ডেইলি অনলাইন’ জানিয়েছে, বিশ্বের সবচেয়ে বড় ও ভারি এই লিফটটি নির্মাণে ব্যয় করা হয়েছে ১২০ মিলিয়ন ইয়েন বা ১৩ মিলিয়ন ইউরো। ১৯৯৬ সালে শুরু হয় এটির নির্মাণ কাজ এবং ১৯৯৯ সালে শেষ হয়। তবে নিরাপত্তার কথা ভেবে চালুর পর কিছুদিনের জন্য বন্ধ রাখা হয় এই লিফটটি।

তারপর ২০১৩ সালে আবারও খুলে দেওয়া হয় এই লিফটটি। দর্শনার্থীরা একে বলে থাকেন, বিশ্বের সবচেয়ে ভয়ঙ্করতম লিফট। এই পর্যন্ত ৩টি বিভাগে গিনেজ বুকে নাম উঠেছে এই হান্ড্রেড ড্রাগন স্কাই লিফটটির। একদিক দিয়ে এটি বিশ্বের সবচেয়ে বড় সার্বক্ষণিক খোলা থাকা লিফট। দ্বিতীয়ত এটি বিশ্বের বৃহত্তম দোতলা লিফট। আর তৃতীয়ত এটি বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগামী একটি লিফট। তবে এই লিফটে যারা ওঠেন তাদের অনেক সাহসী মনের মানুষ হতে হয়।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...