The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ভ্রমণে যাত্রাকালীন অসুস্থতা রোধে করণীয়

এইগুলোকে মোশন সিক্নেস বা গতিজনিত অসুস্থতা বলা হয়

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ অনেকেই যানবাহনে উঠলে যেনো অস্বস্তিতে ভোগেন, ঠাণ্ডা ঘাম হতে থাকে ও শেষে অনেকেই বমি করতে থাকেন।

ভ্রমণে যাত্রাকালীন অসুস্থতা রোধে করণীয় 1

এইগুলোকে মোশন সিক্নেস বা গতিজনিত অসুস্থতা বলা হয়। গতি থামলেই আবারও অসুস্থতা কমে যায়। যতো আপনার ভ্রমণ বাড়তে থাকে ততোই আপনি গতির সঙ্গে খাপখাইয়ে নিতে পারেন।

ভ্রমণের আগে আপনি যদি একটি পরিকল্পনা করেন তাহলে আপনি ভালোভাবে ভ্রমণটা উপভোগও করতে পারেন। তাই ভ্রমণের পূর্বে একটি সুবিধামতো সিট রিজার্ভ করে নিন।

যদি জাহাজে হয় তাহলে জাহাজের অগ্রভাগে কিংবা মধ্যভাগে একটি ক্যাবিনের জন্য অনুরোধ করতে পারেন বা উপরের ডেকে।
যদি প্লেনে হয়, তবে পাখার সম্মুখভাগে কোন একটি সিটের জন্য অনুরোধ করতে পারেন। যখন বিমান চলবে, বাতাসের প্রবাহ আপনার মুখমণ্ডলের ওপর ফেলুন।

আর যদি ট্রেনে হয়ে থাকে, তাহলে জানালার পাশে একটি সিট নিন। ট্রেন যেদিকে চলেছে সেদিকে মুখ ফিরে বসুন। আর যদি বাস বা গাড়িতে হয় তাহলে সামনের দিকের সিটে বসুন।

আপনি যদি সত্যিই মোশন সিকনেসে ভুগে থাকেন তাহলে করণীয়:

# তাকিয়ে থাকুন দূর-দিগন্তে বা দূরবর্তী কোনো বস্তুর দিকে, কখনও পড়তে যাবেন না।

# মাথাটা আলগোছে সিটে এলিয়ে দিন।

# ধূমপান হতে বিরত থাকুন। ধূমপায়ীদের থেকেও দূরে থাকুন।

# বেশি মসলাযুক্ত ও তৈলাক্ত খাদ্য খুব কম খাওয়ার চেষ্টা করুন।

# কিছু পরিমাণ এ্যান্টিহিস্টামিন যেমন (মেক্লিজিন বা ডাইমেনহাইড্রিনেট) ৩০-৬০ মিনিট পূর্বে খেয়ে নিতে পারেন। তবে খেয়াল করবেন এতে করে আপনার ঘুম ঘুম ভাব আসতে পারে।

# স্কোপলামিনের কথাও ভাবতে পারেন। ভ্রমণের পূর্বে কানের পিছনে স্কোপোলামিন প্যাচ লাগিয়ে নিন। এটি ব্যবহারের পূর্বে অবশ্যই এ্যাজমা, গ্লুকোমা এবং প্রস্রাবজনিত সমস্যার রোগীদের সতর্ক থাকতে হবে।

# মচমচে শুকনো খাবার খেতে পারেন, পান করতে পানের কার্বোনেটেড জাতীয় তরল পানীয়। এতে আপনি কিছুটা হলেও উপকার পাবেন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...