The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এম০২ হ্যান্ডসেটে ১০০ দিনের রিপ্লেসমেন্ট ওয়্যারেন্টি

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ স্যামসাং স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের উন্নত অভিজ্ঞতা নিশ্চিতে গ্যালাক্সি এম০২ হ্যান্ডসেটে ১০০ দিনের রিপ্লেসমেন্ট ওয়্যারেন্টি সুবিধাটি চালু করেছে।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এম০২ হ্যান্ডসেটে ১০০ দিনের রিপ্লেসমেন্ট ওয়্যারেন্টি 1

জানানো হয়েছে যে, সার্টিফাইড ত্রুটিযুক্ত ডিভাইসগুলো রিপ্লেসমেন্টের জন্য প্রযোজ্য হবে। এক্ষেত্রে ওয়্যারেন্টি কার্ডে উল্লেখিত শর্তাদিও অনুসরণ করা হবে।

ডুয়াল ক্যামেরা, অনন্য পারফরমেন্স, অসামান্য ডিজাইন ও ভিজ্যুয়াল অভিজ্ঞতায় স্যামসাং- এর নতুন বাজেটবান্ধব স্মার্টফোন হলো এই গ্যালাক্সি এম০২। ডিভাইসটিতে আরও রয়েছে ২ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো সেন্সরের সঙ্গে ১৩ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি ক্যামেরা। এতে আরও রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা। স্যামসাং গ্যালাক্সি এম০২-তে ৬.৫ ইঞ্চি এইচডি+ইনফিনিটি-ভি ডিসপ্লে রয়েছে এবং এই স্মার্টফোনটি ডলবি অ্যাটমসও সমর্থন করে।

রয়েছে ৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের বিশাল ব্যাটারি ও ১.৫ গিগাহার্টজ কোয়াড-কোর প্রসেসর। যে কারণে স্যামসাং গ্যালাক্সি এম০২-ব্যবহারকারীদের উন্নত পারফরমেন্স নিশ্চিত করবে এবং গেমিংয়ের সময়কে করবে আরও দীর্ঘায়িত।

তাছাড়াও এই ডিভাইসটিতে আরও রয়েছে ‘ডিসকর্ড’ ফিচার। যা গেমারদের সুবিধামতো ভয়েস চ্যাটের মাধ্যমে অন্যান্য খেলোয়াড়দের সঙ্গে কথা বলতেও সহায়তা করে।

গ্রাহকরা বর্তমানে গ্যালাক্সি এম০২ এর সঙ্গে এই সমস্ত দুর্দান্ত ফিচারের পাশাপাশি একশ’ দিনের রিপ্লেসমেন্ট ওয়্যারেন্টি সুবিধাও উপভোগ করতে পারবেন। এই স্মার্টফোন ক্রয়ে স্যামসাং ৬শ’ টাকা পর্যন্ত ছাড়ের অফারও রয়েছে। তাই, গ্যালাক্সি এম০২ (২/৩২ জিবি) ভেরিয়েন্টের দাম বর্তমানে (৯,৫৯৯ টাকার পরিবর্তে) ৮,৯৯৯ টাকা এবং গ্যালাক্সি এম০২ (৩/৩২ জিবি) ভেরিয়েন্টের মূল্য (১০,৯৯৯ টাকার পরিবর্তে) মাত্র ১০,৪৯৯ টাকা। অবশ্য এই অফারটি ৩১ মে পর্যন্ত প্রযোজ্য ছিলো।

স্যামসাং’র অফিশিয়াল এই ওয়েবসাইটে ঢুকেও বিস্তারিত জানতে পারেন: www.galaxyshopbd.com

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...