The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

বিরক্তিকর এসএমএস বন্ধে উদ্যোগ বিটিআরসির: কিভাবে এটি বন্ধ করবেন জেনে নিন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মোবাইলে অনাকাঙ্খিত বিভিন্ন প্রমোশনাল এসএমএস বন্ধে গ্রাহকদের এবার সচেতন করছে বিটিআরসি। এতোদিন এই ঝামেলায় গ্রাহকরা বিরক্তিতে পড়তেন। তবে ইচ্ছে করলেই এটি বন্ধ রাখা যায়। জেনে নিন কিভাবে।

বিরক্তিকর এসএমএস বন্ধে উদ্যোগ বিটিআরসির: কিভাবে এটি বন্ধ করবেন জেনে নিন 1

প্রমোশনাল এসব এসএমএসে বিরক্ত হলে তা বন্ধ করার উপায় চালু রয়েছে আসলে আগে থেকেই । তবে প্রচার-প্রচারণা এবং সচেতনতার অভাবে সেবাটি সম্পর্কে অনেকেই সেভাবে জানেনও না এবং অনাকাঙ্খিত এসএমএসে ভোগান্তির শিকার হন। গ্রাহকরা বিষয়টি নিয়ে বিটিআরসিতে বিস্তর অভিযোগও করে থাকেন বিভিন্ন সময়।

বিটিআরসি বেশ কয়েক বছর পূর্বেই গ্রাহকের জন্য এসব এসএমএস বন্ধের অপশন রাখতে মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোকে নির্দেশনা দিয়েছিলো ও অপারেটরগুলোও তা রেখেছেও।

তবে এসব বন্ধের ‘ডু নট ডিস্টার্ব বা ডিএনডি’ সেবাটি যেনো গ্রাহকরা নেন সেজন্য সচেতনতা তৈরি করতে প্রচারণা শুরু করেছে এই সরকারি নিয়ন্ত্রণ সংস্থাটি।

গত শনিবার এই সেবাটি সম্পর্কে বিস্তারিত জানিয়ে গণমাধ্যমে তা প্রচারের কার্যক্রম শুরু করেছে বিটিআরসি।

বিটিআরসি বলছে যে, মোবাইল অপারেটরদের নিত্যনতুন সেবা সম্পর্কে জানতে প্রমোশনাল এসএমএস বা ক্যাম্পেইন সহায়ক ভূমিকা পালন করে থাকে। তারপরও ক্ষেত্রবিশেষে গ্রাহকের কাছে এসব এসএমএস বিরক্তিকর বলে প্রতীয়মান হয়। তাই গ্রাহকরা যেনো এসব বন্ধ করতে হলে ‘ডু নট ডিস্টার্ব ’ সেবাটি নেন।

প্রমোশনাল এসএমএস না পেতে চাইলে গ্রাহকদের গ্রামীণফোনের *১২১*১১০১#, বাংলালিংক *১২১*৮*৬# ও রবি এবং এয়ারটেল *৭# ডায়াল করে সেবাটি চালু করতে পারেন।

উল্লেখ্য, ইতিপূর্বে যখন তখন এমনকি মাঝ রাতের পরও আসা এসএমএসের অত্যাচার হতে গ্রাহকদের বাঁচাতে ২০১৮ সালের অক্টোবরে কঠোর হওয়ার নির্দেশনা দিয়েছিলো টেলিযোগাযোগ এবং তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি। বিটিআরসি সেই অনুযায়ী পদক্ষেপও গ্রহণ করেছে।

অবশ্য কিছুদিন পূর্বে রাত ১২টা হতে ভোর পর্যন্ত গ্রাহকদেরকে কোনো এসএমএস না পাঠাতে নির্দেশনা দেয় বিটিআরসি।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...