The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

মুখে মুখ লাগিয়ে করোনা আক্রান্ত স্বামীকে বাঁচানোর চেষ্টা!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ করোনা আক্রান্ত স্বামীর তীব্র শ্বাসকষ্ট শুরু হলে তাকে নিয়ে অটোরিকশায় করে হাসপাতালে রওনা দেন রেনু সিঙ্ঘল। তবে অটোর মধ্যেই স্বামীর শ্বাসকষ্ট আরও বেড়ে গেলে নিরুপায় হয়ে মুখে মুখ লাগিয়ে অক্সিজেন দিয়ে স্বামীকে বাঁচানোর প্রাণপণ চেষ্টা করেন রেণু!

মুখে মুখ লাগিয়ে করোনা আক্রান্ত স্বামীকে বাঁচানোর চেষ্টা! 1

এনডিটিভির এক খবরে বলা হয়, এই ঘটনাটি ঘটেছে বর্তমানে করোনায় বিপর্যস্ত ভারতের উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের আগরায়। এ সময় স্বামীর মুখে মুখ দিয়ে কৃত্রিম উপায়ে তাকে শ্বাস দিয়ে বাঁচিয়ে তুলতে চেষ্টা চালান ওই নারী। তবে তার সব চেষ্টায় শেষ পর্যন্ত ব্যর্থ হয়। গতকাল (সোমবার) হাসপাতালের বাইরেরেণুর কোলেই মারা যান তার স্বামী রবি সিঙ্ঘল। শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত অসহায় রেণুর স্বামীকে বাঁচানোর এই মরিয়া প্রচেষ্টা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এই ঘটনার পর আবারও ফুটে উঠছে ভারতে কোভিড রোগীদের করুণ দুর্দশার চিত্র।

পুলিশ জানিয়েছে, উত্তরপ্রদেশের আবাস বিকাশ সেক্টর ৭-এর বাসিন্দা রবি সিঙ্ঘলের শারীরিক অবস্থার ক্রমশ অবনতি ঘটায় তাকে নিয়ে হাসপাতালের দিকে রওনা দেন রেনু। অটোতে করে তড়িঘড়ি পৌঁছাতে চেয়েছিলেন সরোজিনী নাইডু মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালটিতে। তবে সেই সরকারি হাসপাতালে ভর্তির আগেই করানোয় আক্রান্ত রবির শ্বাসকষ্টের সমস্যা গুরুতর হতে শুরু করে। স্বামীকে মৃত্যুর মুখ হতে ফিরিয়ে আনতে তারপর অটোর মধ্যেই তাকে কৃত্রিম উপােয়ে মুখে মুখ লাগিয়ে বাঁচানোর চেষ্টা শুরু করেন রেনু। তবে রবিকে শেষ পর্যন্ত বাঁচাতে পারেননি তিনি। ঘটনার পর রীতিমতো বিহ্বল রেনুর ছবিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে ভাইরাল হয়েছে।

মুখে মুখ লাগিয়ে করোনা আক্রান্ত স্বামীকে বাঁচানোর চেষ্টা! 2

এমন একটি হৃদয় বিদারক ঘটনায় দিল্লি, আগ্রাসহ ভারতের অসংখ্য হাসপাতালে কোভিড রোগীদের ভয়াবহ দৃশ্যের কথা নেটবাসীকে স্মরণ করিয়ে দিচ্ছে। করোনায় আক্রান্তদের চিকিৎসায় অক্সিজেনের হাহাকার শুরু হয়েছে ভারতের হাসপাতালগুলোতে। হাসপাতালে অপ্রতুল হয়ে পড়েছে কোভিড রোগীদের বেড।

অথচ দৈনিক সংক্রমণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। সোমবার সকালে ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৩ লাখ ৫২ হাজার ৯৯১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ওই সময়ের মধ্যে মৃ্ত্যু ঘটেছে ২ হাজার ৮১২ জন। শ্মশানগুলোতে লাশ দাহ্য করার জায়গা হচ্ছে না। কবরস্থানেও সংকট সৃষ্টি হয়েছে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...