The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

উপার্জনক্ষম ব্যক্তি করোনায় মৃত্যুবরণ করলে পেনশন পাবেন তার পরিবার

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মহামারী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ভারতে প্রতিদিনই বহু মানুষের মৃত্যু ঘটছে। এমন অবস্থায় দেশটির সাধারণ পরিবার নি:শ্ব হয়ে যাচ্ছেন। তাই ভারত ঘোষণা দিলো উপার্জনক্ষম ব্যক্তি করোনায় মৃত্যুবরণ করলে পেনশন পাবেন তার পরিবার।

উপার্জনক্ষম ব্যক্তি করোনায় মৃত্যুবরণ করলে পেনশন পাবেন তার পরিবার 1

ভারতের করোনার এই ছোবল থেকে রেহাই পাচ্ছেন না বাড়ির একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তিটিও। এমতাবস্থায় বড় সিদ্ধান্ত নিলো ভারত সরকার। কোনও পরিবারের একমাত্র উপার্জনশীল ব্যক্তির করোনায় মৃত্যু ঘটলে পেনশন দেওয়ার ঘোষণা দিলো।

এমল্পয়িজ স্টেট ইনসিউরেন্স করপোরেশন পেনসন স্কিমের মাধ্যমে এই ব্যবস্থাটি চালু করা হবে। শ্রমিকের গড়পরতা মজুরির ৯০ শতাংশ হারে এই পেনশন পাওয়া যেতে পারে।

গত বছরের ২৪ মার্চ হতে ২০২২ সালের ২৪ মার্চ পর্যন্ত এই ধরনের যেসব মৃত্যুর ঘটনা হয়েছে বা হবে তার পরিপ্রেক্ষিতেই মিলবে পেনশন। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিজেই এই ঘোষণা দিলেন।

নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, পরিবারগুলো যে ভয়াবহ আর্থিক সংকটের মধ্যে পড়েছেন তা থেকে কিছুটা হলেও স্বস্তি দেবে এই স্কিম। সেইসঙ্গে কোভিড পরিস্থিতিতে চুক্তিভিত্তিক এবং অস্থায়ী কর্মীদের পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর উদ্যোগও নিচ্ছে দেশটির সরকার। শ্রম মন্ত্রণালয়ের পক্ষ হতে এই বিষযে বিস্তারিত গাইডলাইন প্রকাশ করা হচ্ছে। এদিকে পেনশনের পাশাপাশি তাদের জন্য বিমার ব্যবস্থাও করা হবে।

জানানো হয়েছে যে, ২০২০ সালের ৩ মার্চের পর হতে যারা মারা গিয়েছেন তারাও পেনশনের সুবিধা পাবেন। ২০২২ সালের ২৪ মার্চ পর্যন্ত ওই সুবিধাটি দেওয়া হবে। বিমার মূল্য ৬ লাখ রুপি থেকে বাড়িয়ে ৭ রুপি টাকা করা হয়।

১৮ বছর বয়সে মাসিক সাহায্যের পাশাপাশি ২৩ বছর বয়সে তাদের ১০ লাখ রুপি দেওয়ার কথাও ঘোষণা করেছে ভারত সরকার। তথ্যসূত্র : জিনিউজ এবং হিন্দুস্তান টাইমস।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...