The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

রেল ইঞ্জিনে ৫ ভেড়ার আত্মহত্যা!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মানুষ আত্মহত্যা করে সেটি আমরা জানি। তবে পশু-পাখিও যে আত্মহত্যা করে সেটি বোধ হয় এবারই প্রথম। এবার রেল ইঞ্জিনে ৫ ভেড়ার আত্মহত্যার খবর সংবাদ মাধ্যমে শোভা পাচ্ছে।

রেল ইঞ্জিনে ৫ ভেড়ার আত্মহত্যা! 1

সংবাদে জানা যায়, দিনাজপুরের পার্বতীপুরে ট্রেনের ইঞ্জিনে কাটা পড়েছে ৬টি ভেড়া। প্রথমে একটি ভেড়া ট্রেনের ইঞ্জিনের নিচে কাটা পড়লে অপর ৫টি ভেড়া একে একে চলন্ত ইঞ্জিনের নিচে ঝাঁপদিয়ে কাটা পড়ে মারা যায়। তাদের দুইটি মা ভেড়ার পেটে বাচ্চা ছিল বলেও জানা যায়।

গত শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে পার্বতীপুর রেলওয়ে জংশন এলাকার লোকো শেডের সামনে এই দুর্ঘটনাটি ঘটে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায় যে, ভেড়াগুলো পার্বতীপুর শহরের ইসলামপুর কালিবাড়ী জনৈক আনোয়ার হোসেনের বাড়িতে পালিত হয়ে আসছিলো। তবে তিনি এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

প্রত্যক্ষদর্শী জনৈক সংবাদকর্মী জাকির হোসেন বলেছেন, ‘রেললাইনে প্রথমে একটি ভেড়া হঠাৎ করে ইঞ্জিনের নিচে পড়ে মারা যায়। পরে একসঙ্গে ৫টি ভেড়া আত্মাহুতির মতোই ইঞ্জিনের নিচে কাটা পড়ে। শুনেছিলাম এক ভেড়া যেখানে যায় সব ভেড়াও নাকি যায় সেখানেই। পার্বতীপুর লোকো শেডের সামনে বাস্তবে তা প্রত্যক্ষ করা গেছে। একটির দেখাদেখি পালের ৫ ভেড়াই একসঙ্গে রেল ইঞ্জিনের নিচে মাথা দিয়ে আত্মাহুতি দিয়েছে। সত্যিই একটি আজব ঘটনা বটে’!

এই বিষয়ে লোকো ইনচার্জ আব্দুল কাফি বলেছেন, যার ভেড়া তিনি এমন অনিরাপদ অবস্থায় প্রাণীগুলোকে কেনো ছেড়ে গেলেন তা বুঝতে পারছি না। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

পার্বতীপুর উপজেলা প্রাণী সম্পদ কমর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, ভেড়া প্রকৃতপক্ষে একতাবদ্ধ প্রাণী। তারা সব সময় একসঙ্গে পাল হিসেবে বিচরণ করে থাকে। যে কারণে আজকের এই ঘটনাটি ঘটেছে। অন্যান্য প্রাণীর থেকে তারা একেবারেই ভিন্ন। তিনি বলেছেন, ভেড়ার মালিক একটু সতর্ক হলে রেললাইনের ওপর ইঞ্জিনে কাটা পড়ার এমন একটি দু:খজনক ঘটনা ঘটতো না।

উল্লেখ্য, শুধু বাংলাদেশের এই ঘটনায় নয়, বিশ্বের অন্যান্য স্থানেও অনেক ভেড়ার দল একসঙ্গে এভাবে আত্মাহুতি দেওয়ার মতো ঘটনাও ঘটেছে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...