The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ত্বকের শুষ্কতা দূর করবেন যেভাবে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ গরমের সময়েও অনেকেই ত্বকের শুষ্কতা নিয়ে সমস্যায় পড়েন। নিত্যদিনের ব্যস্ততার কারণে ত্বকের যত্ন নেওয়ার সময়ও হয়ে ওঠে না অনেক সময়।

ত্বকের শুষ্কতা দূর করবেন যেভাবে 1

অথচ ঠিকমতো যত্ন না নিলে ত্বক শুষ্ক এবং রুক্ষ্ম হয়ে যায়। তাছাড়া ত্বকের উজ্জ্বলতাও হারায়, ত্বকের উপরিভাগ কালো হয়ে আসে ও ত্বকও ফেটে যায়। আজ জেনে নিন রইলো ত্বককে শুষ্কতার হাত থেকে বাঁচাবার কিছু উপায়সমূহ:

# ত্বককে যতোটা সম্ভব আর্দ্র রাখতে হবে। প্রতিদিন নিয়মিত অন্তত ২ বার বা প্রয়োজনে ৩ বার ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন। ত্বকের শুষ্ক ভাব দূর হয়ে গিয়ে নরম এবং মসৃণ হবে।

# পরিমাণমতো পানি পান না করলে ত্বকও পানিশূন্য হয়ে পড়ে। এতে করে ত্বক শুষ্ক, রুক্ষ এবং নিষ্প্রাণ হয়ে পড়ে। তাই দিনে অন্তত পক্ষে ১২ গ্লাস পানি পান করুন।

# ত্বকের উপরিভাগের আদ্রর্তা দূর করে যা ত্বকের শুষ্কতার জন্য মূলত দায়ী অ্যালকালাইন। তাই অ্যালকালাইন মুক্ত ফেসওয়াস এবং সাবান নির্বাচন করুন। এতে করে ত্বকের আদ্রর্তা বজায় থাকবে এবং ত্বক আরও শুষ্ক হবে না।

# খাদ্যাভ্যাসের কারণে আমাদের ত্বকের শুষ্কতা অনেকটাই বেড়ে যায়। তাই ত্বকের আদ্রর্তা বজায় রাখতে হলে পানিযুক্ত খাবার খাওয়া অনেক বেশি জরুরি। পানি সমৃদ্ধ সবজি এবং ফলমূল খান। এগুলো দেহের পানির পরিমাণ ঠিক রাখে এবং ত্বক শুষ্ক হওয়ার হাত থেকেও বাঁচায়।

# ত্বক খুব বেশি পরিমাণে শুষ্ক হলে এই শুষ্কতা তা দূর করতে মধুর সাহায্য নিতে পারেন। এই কাজটি আপনি রাতে করলে সব চাইতে ভালো ফল পাবেন। এক টেবিল চামচ মধু হাতে নিয়ে মুখে ম্যাসাজ করতে হবে ২০ থেকে ২৫ মিনিট। তারপর মুখ ভালো করে ধুয়ে ফেলুন পানি দিয়ে। এই সময় মুখে কোনো ধরনের প্রসাধনী লাগাবেন না।

# সকালে উঠে সাধারণভাবে মুখ ধুয়ে ফেলুন এবং ময়সচারাইজার লাগান। প্রতিদিন ব্যবহারে ত্বকের শুষ্কতা যেমন দূর হবে, ঠিক তেমনি ত্বক উজ্জ্বল, মসৃণ এবং কোমলও হবে।

এভাবে ত্বকের যত্ন নিয়ে আপনার ত্বকের শুষ্কতা দূর হবে এবং ত্বক ভালো থাকবে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...