The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

এক অফিসের ৫০০ কর্মী একসঙ্গে কোটিপতি!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সত্যিই আশ্চর্য না হয়ে পারা যায় না। কারণ এক অফিসের ৫০০ কর্মী একইসঙ্গে কোটিপতি হয়েছেন! কীভাবে এমনটি সম্ভব?

এক অফিসের ৫০০ কর্মী একসঙ্গে কোটিপতি! 1

তবে এটি গল্প নয়, বাস্তবেই এমনটি ঘটেছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থিত ভারতীয় তথ্য-প্রযুক্তি সংস্থা ফ্রেশওয়ার্কস এর ৫০০ কর্মী তাদের কোম্পানীর শেয়ারের দাম বাড়তেই রাতারাতি কোটিপতি হয়ে গেলেন।

মার্কিন শেয়ারবাজারের তালিকাভুক্ত প্রথম ভারতীয় সংস্থা হলো ফ্রেশওয়ার্কস। গিরিশ মথ্রুবুথাম এবং শান কৃষ্ণসামি নামে দুই উদ্যোক্তা ভারতে এই সংস্থাটি প্রতিষ্ঠা করেন ২০১০ সালে। পরে ব্যবসার সুবিধার জন্য সংস্থাটিকে সরানো হয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিলিকন ভ্যালিতে।

বর্তমানে এই সংস্থার প্রধান কার্যালয় ক্যালিফোর্নিয়ার সান মেটোতে। তবে এখনও সংস্থার হয়ে অনেক কর্মী চেন্নাইয়ের অফিস হতেই কাজ করছেন।

সংস্থার কর্ণধার মথ্রুবুথাম জানিয়েছেন, বিশ্বব্যাপী ১২০টি দেশজুড়ে ৫২ হাজারেরও বেশি গ্রাহক রয়েছেন তাদের। সেই গ্রাহকদের মধ্যে ১৩ হাজারেরও বেশি গ্রাহক বছরে ৫ হাজার ডলারেরও বেশি মূল্যের পরিষেবা নিয়ে থাকেন।

বিশ্বজুড়ে ৪ হাজারেরও বেশি কর্মী রয়েছেন এই সংস্থার অধীনে। অনেক কর্মী বেতনের পাশাপাশি সংস্থার শেয়ারও পেয়ে থাকেন। বিশ্বজুড়ে প্রায় ৭৬ শতাংশ কর্মীর কাছেই এই সংস্থার কমবেশি শেয়ার ছিল।

গত সপ্তাহে ১০০ কোটি ডলারের শেয়ার লঞ্চিংয়ের পরপরই ফ্রেশওয়ার্কসের শেয়ারদর প্রায় ৩২ শতাংশ বৃদ্ধি পায়। নিউ ইয়র্ক ট্রেডিংয়ে দিনের শেষে এই প্রযুক্তি সংস্থার শেয়ারদর গিয়ে দাঁড়ায় ৪৭.৫৫ মার্কিন ডলারে।

এই সংস্থাটির মোট মার্কেট ভ্যালু বর্তমানে প্রায় ১৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। শেয়ারের দাম চড়তেই রাতারাতি কোটিপতি হয়ে গেলেন সংস্থার প্রায় ৫০০ কর্মী। তাদের মধ্যে প্রায় ৭০ জনেরই বয়স ৩০-এরও কম!

কর্ণধার মথ্রুবুথাম জানিয়েছেন, চেন্নাই, বেঙ্গালুরু এবং হায়দরাবাদ হতে সেরা কর্মীদের নিয়োগ করা হয়। তারপর কঠোর পরিশ্রম এবং কৌশলের মাধ্যমে এই সাফল্য এসেছে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের কাপড়ের মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...