২০৫০ সালের ভেতর জ্বালানী ছাড়াই স্বয়ংক্রিয়ভাবে রাস্তায় গাড়ি চলবে

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ গত কয়েক বছর ধরেই গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো নতুন মডেলের গাড়ি বাজারে আনছে যা ক্রেতাদেরও আকর্ষন করছে। শুধু নতুন মডেলই নয়, এসব গাড়ির সাথে যুক্ত হচ্ছে অত্যাধুনিক নানা টেকনোলজি সুবিধা, ফলে প্রশ্ন দেখা গিয়েছে অদূর ভবিষ্যৎ এর গাড়িগুলো কেমন হবে?


Cars-In-2050

গবেষকরা জানিয়েছেন ২০৫০ সালের মধ্যেই গাড়ি হয়ে যাবে স্বয়ংক্রিয় অর্থ্যাৎ হুইল ঘোরানোর ঝামেলা তখন আর থাকবে না এবং সেসব গাড়ি চালাতে প্রয়োজন হবে না কোনো জ্বালানী তেলেরও!

অবশ্য অনেক নির্মাতা প্রতিষ্ঠানই বলেছে স্বয়ংক্রিয় গাড়ি ২০২০ সালের ভেতরেই চলে আসবে। e-Bee নামের একটি স্বয়ংক্রিয় একটি গাড়ির কথা ইতিমধ্যেই জানা গেছে যা ইন্টারনেটের সাথে যুক্ত থেকে নিজের পথ নিজে চিনে চলতে পারবে।

This slideshow requires JavaScript.

নীচের ভিডিওটি থেকে দেখে নিতে পারেন e-Bee এর ধারণা

তবে প্রায় সব গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানই একটি ব্যাপারে একমত হয়েছে যে ২০৪০ সালের ভেতরেই রাস্তায় স্বয়ংক্রিয় গাড়ির আধিপাত্য থাকবে বেশী। ২০৫০ সালের ভেতরেই বিশ্ব ৩ বিলিয়নেরও বেশী গাড়ি থাকবে যার সবগুলোই হবে স্বয়ংক্রিয়। শুধু তাই নয় প্রতিষ্ঠানগুলো আরও যেটি বলেছে, এই গাড়িগুলো খুবই উচ্চ গতিতে চলাচল করবে কোনো রকম দূর্ঘটনা ছাড়াই।

যদিও গাড়িগুলো স্বয়ংক্রিয় হবে তবু যদি কোনোরুপ ম্যালফাংশনের শিকার হয় তবে আপনি তখন ম্যানুয়ালি গাড়ি চালাতেও পারবেন। আপনি যখন ম্যানুয়ালি গাড়ি চালানো শুরু করবেন তার আগেই একটি ডিসপ্লে এসে আপনাকে জানিয়ে দেবে কীভাবে চালাতে হবে। গাড়িতে বসেই আপনি জানতে পারবেন ঠিক কতো দূরত্বে আর একটি গাড়ি রয়েছে, কোথায় বাঁক নিতে হবে এবং আরও কিছু। অর্থ্যাৎ তখনো আপনি কিছু স্বয়ংক্রিয় সুবিধা পাবেন।

সন্দেহ নেই প্রযুক্তি যদি এইরকম উন্নতিতে গিয়ে পৌঁছায় তবে আপনার সময় বাঁচবে, আপনি আরও দ্রুতগতিতে কাজ করতে পারবেন। ট্রাফিক জ্যামের কারণে আপনার সময় নষ্ট হবে না, এবং দূর্ঘটনা কমে আসায় আহাজারিও কমে আসবে। ২০৫০ সাল হয়তো অপেক্ষা করছে পরিপূর্ণ ডিজিটাল জীবন নিয়ে!

এ সম্পর্কে আরও জানতে চাইলে নীচের তথ্যসূত্র লিঙ্কে ক্লিক করুন।

তথ্যসূত্রঃ TheTechJournal

Advertisements
Loading...