কিছু অসাধু ওয়েবসাইট নির্লজ্জ ভাবে দি ঢাকা টাইমসের কনটেন্ট কপি পেস্ট করছে

আমরা কিছুদিন ধরে লক্ষ্য করছি দি ঢাকা টাইমসের বেশ কিছু পোস্ট নির্লজ্জ ভাবে কিছু ওয়েবসাইট সরাসরি অবিকল কপি পেস্ট করে নিজেদের সাইটে চালিয়ে দিচ্ছে।


New Folder1

দি ঢাকা টাইমস অন্যান্য তথাকথিত অনলাইন সংবাদ পত্র নয়, দি ঢাকা টাইমস নিজের ইউনিক কনটেন্ট নিয়ে অনলাইনে একটি ব্যাতিক্রমধর্মী ম্যাগাজিন হিসেবে কাজ করে যাচ্ছে। কিন্তু বেশ কিছুদিন ধরে অনলাইনের তথা কথিত সংবাদ মাধ্যম নামে নিজেদের পরিচয় দেয়া এবং ব্যাঙের ছাতার মত গজিয়ে উঠা ২৪ সাইট সমূহ দি ঢাকা টাইমসের কনটেন্ট অবিকল কপি পেস্ট করে নিজেদের বলে নির্লজ্জ ভাবে চালিয়ে দিচ্ছে।

চলুন দেখে নেয়া যাক কিছু নমুনা, মুখোশধারী কপি পেস্ট কারী সাইট, যারা ঢাকা টাইমস থেকে বিভিন্ন পোস্ট অবিকল কপি করে নিজেদের সাইটে নিজেদের নামে চালিয়ে দিচ্ছে।

প্রথমেই টেকপোস্টবিডি নামের এই সাইটে দেখা যায় তারা দি ঢাকা টাইমস এর অসংখ্য সংবাদ, টিউটোরিয়াল নিজেদের বলে বেহায়া নির্লজ্জ কপি পেস্ট করে প্রতিদিন আপডেট দিয়ে যাচ্ছে। চলুন তাঁদের কিছু কপি/পেস্ট নমুনা দেখে নিঃ

ফেসবুকে নিজেকে নিরাপদ রাখতে কিছু টিপস (পর্ব-১)  এই সংবাদটি প্রথম দি ঢাকা টাইমসে প্রকাশ হয়েছে ১৮ নভেম্বর। কিন্তু একই দিন দি ঢাকা টাইমসে সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পরই  তারা সেই সংবাদ নিজেদের নামে কপি পেস্ট করে চালিয়ে দেয়। এরকম অসংখ্য সংবাদ টেকপোস্টবিডি নামের এই সাইট নিজেদের নামে ঢাকা টাইমস থেকে কপি/পেস্ট করে পাবলিশ করে যাচ্ছে।

দি ঢাকা টাইমসে প্রকাশিতঃ ফেসবুকে নিজেকে নিরাপদ রাখতে কিছু টিপস (পর্ব-১)

টেকপোস্টবিডি কপি করে পেস্ট করেঃ ফেসবুকে নিজেকে নিরাপদ রাখতে কিছু টিপস (পর্ব-১)

দি ঢাকা টাইমসে প্রকাশিতঃ ফেসবুকে নিজেকে নিরাপদ রাখতে কিছু টিপস (পর্ব-২)

টেকপোস্টবিডি কপি করে পেস্ট করেঃ ফেসবুকে নিজেকে নিরাপদ রাখতে কিছু টিপস (পর্ব-২)

দি ঢাকা টাইমসে প্রকাশিতঃ ১০ বছর বয়সী শিশু ‘সুইটি’ এর যৌন নিপীড়ক তালিকায় চারজন বাংলাদেশী! [ভিডিও]

টেকপোস্টবিডি কপি করে পেস্ট করেঃ ১০ বছর বয়সী শিশু ‘সুইটি’ এর যৌন নিপীড়ক তালিকায় চারজন বাংলাদেশী! [ভিডিও]

দি ঢাকা টাইমসে প্রকাশিতঃ হাতিরঝিলে হয়ে গেল চোখ ধাঁধানো লেজার শো “আলোর মিছিল” [ছবি ও ভিডিও]

টেকপোস্টবিডি কপি করে পেস্ট করেঃ হাতিরঝিলে হয়ে গেল চোখ ধাঁধানো লেজার শো “আলোর মিছিল” [ছবি ও ভিডিও]

টেকপোস্টবিডি নামের এই সাইটের আরও অসংখ্য সংবাদ অবিকল দি ঢাকা টাইমস এর সংবাদের কপি/পেস্ট সব দিয়ে শেষ করা যাবেনা সম্পূর্ণ সাইট দি ঢাকা টাইমসের সংবাদ দিয়ে ভরিয়ে ফেলেছে এরা। দি ঢাকা টাইমসের নতুন সংবাদ পাবলিশ হতে সময় লাগে তাঁদের কপি করতে সময় লাগেনা।

এবার চলুন আরও কিছু কপি/পেস্টকারী কথিত অনলাইন নিউজ পোর্টালের ঢাকা টাইমস থেকে কপি পেস্ট করা সংবাদের নমুনা দেখি।

দি ঢাকা টাইমসে প্রকাশিতঃ ১৫ হাজার টাকায় পুরোনো টেবিল কিনে ড্রয়ারে পেলেন ৭৬ লক্ষ টাকা! এই সংবাদ এমটিনিউজ নামের এই সাইট অবিকল কপি করেছে এখানে দেখুন। হাস্যকর বিষয় হচ্ছে এই কপি করা সংবাদ নাকি তাঁদের এক্সক্লুসিভ ডেস্ক থেকে এসেছে।

দি ঢাকা টাইমসে প্রকাশিতঃ পৃথিবীর ভেতর আরেক পৃথিবী চীনের ইয়ার ওয়াং ডং গুহার আবিষ্কার! এই একই সংবাদ এমটিনিউজ নামের সাইটটি নির্লজ্জ কপি পেস্ট করে নিজেদের সাইটে পাবলিশ করেছে এখানে দেখুন

দি ঢাকা টাইমসে প্রকাশিতঃ এবার ৭ বছরের বালকের সঙ্গে পর্ণ তারকা সানি লিওন! এই সংবাদ কপি করে চালিয়ে দিয়েছে সরেজমিনবার্তা নামের সাইট

এধরণের দি ঢাকা টাইমসের অসংখ্য পোস্ট অসংখ্য সাইট তাঁদের নিজের নামে চালিয়ে দিচ্ছে যা লিখে শেষ করা যাবেনা।

কিন্তু এসব কপি পেস্ট ভুই ফোঁড় সংবাদ মিডিয়া নামের সাইট সমূহ কি একবারো ভাবেনা অন্য সাইটের থেকে সংবাদ চুরি করে কয়দিন চলবে তারা! নিজেরা সৃজনশীল লিখার যোগ্যতা না রাখলে কেন এভাবে ওয়েব সাইট খুলে বসে! পাঠক অনেক সচেতন, তারা ভালো মন্দের পার্থক্য বুঝে।

দি ঢাকা টাইমস একটি সৃজনশীল প্রতিষ্ঠান এবং এখানে প্রকাশিত সকল সংবাদ দি ঢাকা টাইমস এর স্বত্বাধিকারে, এবং এসব কনটেন্ট দি ঢাকা টাইমস কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা হলে দি ঢাকা টাইমস বাংলাদেশ সাইবার আইন অনুযায়ী আদালতের শরণাপন্ন হতে বাধ্য হবে। দি ঢাকা টাইমস এর আলাদা টিম রয়েছে দি ঢাকা টাইমস এর কনটেন্ট কোথায় কে কবে কপি করে নিজের নামে চালিয়ে দিচ্ছে তা দেখার, দি ঢাকা টাইমস টিম ঐ সকল অসাধু ওয়েব সাইটের মালিকের সম্পূর্ণ আপডেট সংগ্রহ করছে।

draft_lens19151537module157125691photo_132989267390_0

বিদ্রঃ তথ্যপ্রযুক্তি আইন ২০০৬-এর ৫৭ ধারায় বলা হয়েছে, যদি কোনো ব্যক্তি ইচ্ছাকৃতভাবে ওয়েবসাইটে বা অন্য কোনো ইলেকট্রনিক বিন্যাসে কপিরাইট লঙ্ঘন করে বা এমন কিছু প্রকাশ বা সম্প্রচার করেন যা মিথ্যা ও অশ্লীল বা সংশ্লিষ্ট অবস্থা বিবেচনায় কেউ পড়লে বা শুনলে নীতিভ্রষ্ট বা অসৎ হতে উদ্বুদ্ধ হতে পারে বা যার দ্বারা মানহানি ঘটে, আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটে বা ঘটার সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়, রাষ্ট্র বা ব্যক্তির ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয় বা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে বা করতে পারে এ ধরনের তথ্যাদির মাধ্যমে কোনো ব্যক্তি বা সংগঠনের বিরুদ্ধে উস্কানি প্রদান করা হয়, তাহলে তার এই কাজ অপরাধ বলে গণ্য হবে। কোনো ব্যক্তি এ ধরনের অপরাধ করলে তিনি অনধিক ১০ বছর কারাদণ্ডে দণ্ডিত হতে পারেন এবং অনধিক এক কোটি টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হতে পারেন।

Advertisements
Loading...