ডায়াবেটিকস সারাতে ইনজেকশনের বদলে নতুন ট্যাবলেট!

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ ডেনমার্কের কোম্পানি নোভো নরডিস্ক ডায়াবেটিকস রোগীদের জন্য নতুন একটি ট্যাবলেট আনার পরীক্ষা শুরু করেছে। এই ট্যাবলেটটি সফলতার মুখ দেখলে ডায়াবেটিকসে আক্রান্তরা ইনজেকশনের হাত থেকে রেহাই পেতে পারেন।


diebeticd

নোভো নরডিস্কের নতুন এই ওষুধকে ‘জিএলপি-১ মেডিসিন’ হিসেবেই অভিহত করা হচ্ছে। চলতি সপ্তাহেই এই ওষুধের পরীক্ষামূলক ব্যবহার শুরু হবে। আর এই ধাপে প্রায় ৬০০ কোগীর ওপর পরীক্ষামূলকভাবে এই ওষুধ প্রয়োগ করা হবে। আগামী এক বছরী মধ্যেই পরীক্ষামূলক ব্যবহারের ফলাফল বুঝতে পারা যাবে বলে কোম্পানিটির গবেষকরা মনে করছেন। তবে ওষুধটি এরপরও বাজারে আসতে ৫ থেকে ৬ বছর সময় লাগতে পারে।

ডেনমার্কের কোম্পানি নোভো নরডিস্ক এখন পর্যন্ত পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ডায়াবেটিকস ওষুধ প্রস্তুতকারক কোম্পানি। কোম্পানিটির ইনসুলিনগুলোর মধ্যে ‘ভিকটোজা’ নামের ইনসুলিনটি বহুল ব্যবহৃত। কলমের মতো দেখতে একটি ইনজেকশন সিরিঞ্জ দিয়ে ‘ভিকটোজা’ দেহে প্রবেশ করানো হয়। এই একটি আহারযোগ্য ট্যাবলেট ইনসুলিন ব্যবহারকারীদের জন্য বিশাল সুফল বয়ে নিয়ে আসবে, কোম্পানির জন্যেও বয়ে নিয়ে আসবে নতুন এক লাভজনক বাজার। আহারযোগ্য এই ওষুধের উদ্ভাবনের পথে মূল বাধা হচ্ছে, শরীরের কোষ দ্বারা ওষুধটি সঠিকভাবে শোষিত হলো কিনা তা নিশ্চিত করা। নোভো নরডিস্কের প্রধার বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ম্যাড ক্রগসগার্ড এ ব্যাপারে আশা প্রকাশ করে বলেন, তথ্য-উপাত্ত দেখে মনে হচ্ছে আমরা এতে সফল হবো।

বর্তমানে বিশ্বে ৩৮২ মিলিয়ন ডায়াবেটিকস রোগী রয়েছেন। এদের বেশিরভাগই টাইপ-২ ডায়াবেটিকসে আক্রান্ত। এক হিসাব অনুযায়ী, ২০১২ সালেই বিশ্বব্যাপী প্রায় ৪২.২ বিলিয়ন ডলারের ডায়াবেটিকস ওষুধ বিক্রি হয়।

তথ্যসূত্র: নিউজম্যাক্সহেল্থ

Advertisements
Loading...