১০০ টাকার প্রাইজবন্ডের ড্র অনুষ্ঠিত: ১০ ও ৫০ টাকার প্রাইজবন্ড নিষিদ্ধ

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সরকার ১০ ও ৫০ টাকার প্রাইজবন্ডের বিক্রি, বিনিময় ও লেনদেন নিষিদ্ধ করেছে। অর্থ মন্ত্রণালয়ের অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ হতে এক প্রজ্ঞাপন জারির মাধ্যমে এই সিদ্ধান্ত জানানো হয়েছে। ১০০ টাকার প্রাইজবন্ডের ফলাফল সংবাদের শেষ অংশে।

10 and 50 Taka prize bonds is prohibited

সরকার ১০ টাকা ও ৫০ টাকার প্রাইজবন্ডের বিক্রি, বিনিময় ও লেনদেন নিষিদ্ধ করেছে। অর্থ মন্ত্রণালয়ের অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ হতে এক প্রজ্ঞাপন জারির মাধ্যমে এই সিদ্ধান্ত জানানো হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ‘৩১ জানুয়ারি হতে ১০ ও ৫০ টাকা মূল্যমানের প্রাইজবন্ড চূড়ান্তভাবে বন্ধ এবং অচল ঘোষণা করা হলো।’ এরপর বাংলাদেশ ব্যাংক এই ১০ ও ৫০ টাকা মূল্যমানের প্রাইজবন্ড লেনদেন না করতে ব্যাংকগুলোকে নির্দেশ দিয়েছে।

গতকাল রবিবার এক সার্কুলার জারি করে এই নির্দেশনা দেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক। সেইসঙ্গে ৩১ জানুয়ারির আগে অর্থাৎ ৩০ জানুয়ারি পর্যন্ত ব্যাংকগুলো এবং ডাকঘর যেসব ১০ ও ৫০ টাকার মূল্যমানের প্রাইজবন্ড জনসাধারণ নিকট হতে বিনিময় করেছে সেগুলো আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারির মধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংকে জমা দিয়ে নগদায়ন করতেও বলা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে যে, বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় এবং ৯টি শাখা কার্যালয়ে ব্যাংক ও ডাকঘরগুলো এসব বন্ড জমা দিয়ে বিনিময়মূল্য নিতে পারবে।

১০০ টাকার প্রাইজবন্ডের ড্র অনুষ্ঠিত

একশ’ টাকা মূল্যমানের বাংলাদেশ প্রাইজবন্ডের ৭৮তম ড্র গতকাল রবিবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার অফিসের সম্মেলন কক্ষে ঢাকা বিভাগের অতিরিক্ত কমিশনার (সার্বিক) মো: আনিছুর রহমানের সভাপতিত্বে এই ড্র অনুষ্ঠিত হয়।

৬ লাখ টাকার প্রথম পুরস্কারপ্রাপ্ত প্রাইজবন্ডের নম্বর ০৬০৮৯৫১
২য় পুরস্কার ৩ লাখ ২৫ হাজার টাকার প্রাইজবন্ডের নম্বর ০২৪৮৭৪৭
তৃতীয় পুরস্কার ১ লাখ টাকার দুটির নম্বর ০২৬৪০৯৪ ও ০৫০০৮২৯
চতুর্থ পুরস্কার ৫০ হাজার টাকার দুটি নম্বর যথাক্রমে ০০৪৭০৮০ ও ০৩৮৩০৯৫।

পঞ্চম পুরস্কার ৪০টি ১০ হাজার টাকার পুরস্কারের নম্বর ড্র অনুষ্ঠিত হয়েছে। একক সাধারণ পদ্ধতিতে এই ড্র পরিচালিত হয় ও বর্তমানে প্রচলনযোগ্য ১০০ টাকা মূল্যমানের ৪০টি সিরিজের ৪৬টি সাধারণ সংখ্যা পুরস্কার হিসেবে ঘোষিত হয়। অর্থাৎ ক্রমিক নম্বর ০০০০০০১ হতে ১০০০০০০ সংখ্যার অন্তর্ভুক্ত বন্ডের ১ হাজার ৮৪০টি পুরস্কারের মধ্যে প্রতি সিরিজের জন্য ৪৬টি সাধারণ সংখ্যা পুরস্কারের জন্য বিবেচিত হয়েছে।

ড্রয়ে প্রতিটি ১০ হাজার টাকার পঞ্চম পুরস্কার বিজয়ী নম্বরগুলো হলো:

০০৩৬১২৩, ০০৫৯২৫০, ০১২২২০৯, ০১২৫২১৫, ০১৫৮০৬৩, ০১৭৫৮৮৫, ০২৩৬৫০৩, ০২৭৬২৪৮, ০২৯৪৪৬১, ০৩১৫৯৯২, ০৩৩১৮৪১, ০৩৪৭৬৬৯, ০৩৫৬৯২৩, ০৩৭২১৫৪, ০৪৪৭৯৫৭, ০৪৭৪২০২, ০৫৫৪৯৪৭, ০৬৩৬৩৪৪, ০৬৭৪৪৮২, ০৬৯১৯৭৩, ০৬৯৭৫২৭, ০৭১৬৯৬২, ০৭২০৭২৯, ০৭৬৮৩৯৫, ০৭৬৯৬৮৬, ০৭৭৫২০২, ০৭৮৭০২৭, ০৭৯৮১০৪, ০৮০৯২৬৫, ০৮২১৬৩৯, ০৮৩৩৪৭১, ০৮৫১৪০৯, ০৮৬১৮৬২, ০৮৬৬৯৫০, ০৮৭৪০৮০, ০৮৮৬৬৯৩, ০৯০৩৮০৬, ০৯৫৩৮২৭, ০৯৯৩২৯১, ০৯৯৮২০৭।

উল্লেখ্য, আয়কর অধ্যাদেশ ১৯৮৪-এর ৫৫ ধারার নির্দেশনা অনুযায়ী ১ জুলাই ১৯৯৯ সাল হতে প্রাইজবন্ড পুরস্কারের টাকা হতে ২০ শতাংশ হারে উৎসে কর কর্তন করা হয়ে থাকে।

মন্তব্য

Loading...