এবার ভিক্ষুক বেশে রাস্তায় মডেলরা!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ দেশে দেশে মডেলিংয়ের অনেক ধরণ আমরা দেখেছি। কিন্তু তাই বলে ভিক্ষুকের বেশে! ঠিক তাই এবার ভিক্ষুক বেশে রাস্তায় নেমেছেন মডেলরা!

Models in the streets as beggar

ঘটনাটি ঘটেছে চীনের সাংহাইয়ের রাস্তায়। সেখানে হাঁটতে গিয়ে থমকে যান পথচারীরা। রাস্তায় দেখা গেলো একদল নারী ভিক্ষুক। ছেঁড়া-ফাঁটা পোশাক, হাতে ছড়ি, গায়ে কালি-ঝুলি সবই একেবারে ভিক্ষুকের মতো, তবে চেহারা ভিন্ন। চেহারা বরং ফ্যাশন মডেলদের সঙ্গে মিলে যায়। প্রকৃতপক্ষে তারা ফ্যাশন মডেল। তারা ভিক্ষুকের বেশে নেমেছেন প্রতিবাদে।

চীনের ‘সাংহাই অটো শো’ নামক প্রতিষ্ঠানটি পণ্যের প্রচার হতে মডেলদের বাদ দিয়েছে। তাদের যুক্তি হলো, গাড়ি দেখার চেয়ে মডেলদের দিকেই বেশি আকর্ষণ দেখা দেয় দর্শনার্থীদের! সে কারণে ওই কোম্পানির এ বছর গাড়িমেলায় থাকছে না কোনো আকর্ষণীয় মডেল। এর বদলে ‘অটো শো’তে চকলেট বিতরণ এবং পণ্য সম্পর্কে জানাতে নিয়োগ করা হবে বেশকিছু আকর্ষণীয় নির্বাহী।

Models in the streets as beggar-2

কিন্তু ওই গাড়ি কোম্পানি সাংহাই অটো শো কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছেন না মডেলরা। এটি সরাসরি তাদের রুটি-রুজিতে হস্তক্ষেপের সামিল বলেই মনে করছেন তারা। আর তাই এর প্রতিবাদে গত সপ্তাহে সাংহাইয়ের রাস্তায় ভিক্ষা করতে নামেন ওই মডেলরা। এসময় মডেলদের সাজপোশাকও ছিল একেবারে ভিক্ষুকের মতোই।

কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় হচ্ছে ভিক্ষায় নেমেও মডেলরা পণ্যের প্রচার চালিয়েছেন। ভিক্ষুকের বেশে মডেলদের হাতে থাকা কাগজের বোর্ডে লেখা ছিল, ‘থিন কুং ফু খেয়ে ওজন কমিয়ে কী হলো, যদি আমরা গাড়ির মডেলই হতে না পারলাম।’ থিন কুং ফু হলো- একটি পাউডারের মতো খাবার, যেটি প্রতি সপ্তাহে প্রায় ৭ কেজি ওজন কমাতে পারে বলে দাবি করা হয়ে থাকে। তবে প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে পণ্যের প্রচারের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন ওই মডেলরা। ওই প্রতিবাদ নির্দিষ্ট কোনো প্রতিষ্ঠানের পক্ষ হতে সাজানো নাটক কি-না? সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন প্রশ্নও তুলেছেন অনেকেই।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...