ক্লাস রুমেই মিললো ৩০ বছর আগে হারিয়ে যাওয়া বোন!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ক্লাস রুমেই মিললো ৩০ বছর আগে হারিয়ে যাওয়া বোন! এমন একটি অলৌকিক ঘটনাটি ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রের কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটিতে।

Missing sisters Came back after 30 years

ঘটনাটি শুনলে অনেকটা গল্পের মতোই মনে হবে। গল্প বলা শিখতে এসে নিজেই সেদিন গল্প হয়ে উঠেছিলেন দুবোন। একই বেঞ্চে বসে ক্লাস করতেন কিন্তু জানতেন না যে তারাই ৩০ বছর আগে হারিয়ে যাওয়া বোন এটি। বছরের পর বছর দু’জন দু’জনকে খুঁজে ফিরছেন। এতো কাছে থাকার পরও কেও কাওকে চিনে উঠতে পারেনি কোনদিন। কিন্তু সেই ৩০ বছরের ঘটনার সমাপ্তি ঘটলো এক ঘটনার মাধ্যমে।

একেবারে গল্পের মতোই ঘটনাটি ঘটলো যুক্তরাষ্ট্রের কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটিতে। সেখানে পড়তে এসে ছোটবেলায় হারিয়ে যাওয়া এক বোনকে খুঁজে পেলো আরেক বোন। ৩০ বছরের বেশি সময় পর এক হতে পেরেছেন দু’বোন।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, আইওয়া হতে আসা ৩৪ বছর বয়সী ক্যাট্টি ওলসন গত কয়েক বছর ধরে খুঁজছিলেন ৩৫ বছর বয়সী বড় বোন লিজ্জাই ভালভার্ডকে। অভাবের কারণে ছোট বেলাতেই তাদের দু’জনকে দত্তক দেওয়া হয়েছিল। বড়বোন ভালভার্ড বেড়ে ওঠেন নিউ জার্সির একটি সাংবাদিক পরিবারে। আর ছোটবোন ওলসন বেড়ে ওঠেন নিউইয়র্কে একটি পরিবারে। এরপর আর দু’জনের মাঝে দেখা হয়নি কোনোদিন। অনেক খোঁজার পরও কোনভাবেই বড় বোনকে খুঁজে পাচ্ছিলেন না ওলসন। যে বোনকে খুজেঁ হয়রান কখনও ভাবেননি সেই বোনই তার পাশেই বসে থাকে।

খবরে আরও বলা হয়, তবে দু’পরিবারে ভিন্ন আঙ্গিকে বড় হলেও, জন্মসূত্রে পেয়েছিলেন মায়ের কাছ হতে লেখালেখির গুণ। তাইতো শেষমেষ কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটিতে দু’জনেই একসঙ্গে ভর্তি হলেন লেখালেখি বিষয়ক একই ক্লাসে। নিজেদের পরিচিতি ক্লাসে জীবন বৃত্তান্ত বলতে থাকা ভালভার্ডের বলা কথা শুনে প্রথমে একটু আশ্চর্যই হচ্ছিলেন সহপাঠী ওলসন। যখন ছোট বেলায় হারিয়ে যাওয়া বোনটি সর্ম্পকে শুনলেন, তখন বুঝে ফেললেন ভালভার্ডই তার হারিয়ে যাওয়া সেই বড় বোন।

আর তাই ক্লাস শেষে হওয়ার পর তথ্য উপাত্তসহ ভালভার্ডের সামনে হাজির হলেন ওলসন। প্রকৃতিই যখন চাইছে তখন আর কে বাধ সাধবে তাদের। ৩০ বছর পর এক হওয়া দুই বোন বর্তমানে এক সঙ্গেই থাকছেন। দুজনই যেনো অনেক কিছু ফিরে পেয়েছেন এমন আনন্দে দিন কাটাচ্ছেন। এই খবর ছড়িয়ে পড়ার পর এলাকার পরিচিত জনেরা দুই বোনকে দেখতে ভিড় জমাচ্ছেন। আর সংবাদ কর্মীরাতো রীতিমতো লাইন লাগিয়েছেন তাদের কাহিনী শোনার জন্য। তবে সবার মুখে এক কথা দুবোন ৩০ বছর পর এক হয়েছেন- ঈশ্বর সব পারেন।

Advertisements
Loading...