দেহ-মনের প্ল্যাকার্ড নিয়ে যতো কথা

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ দেহ-মনের প্ল্যাকার্ড নিয়ে কতো না লংকা কাণ্ড বয়ে যাচ্ছে। ভ্যাট নিয়ে রাজধানীতে কি ঘটছে তাও কারও অজানা নয়। তবে ভ্যাটের থেকে বেশি আলোচিত বিষয় হলো এই দেহ-মনের প্ল্যাকার্ড!

As with the body-mind of placards

প্ল্যাকার্ডের ভাষাটি শুনতে সত্যিই একটু খারাপই লাগে। তবে কেনো এমন ভাষা সেটি জানা দরকার। ‘মন পাবি, দেহ পাবি, তবু ভ্যাট পাবি না’। ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবিতে এমন একটি স্লোগান লেখা প্ল্যাকার্ড দেখা গেছে সব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের হাতে হাতে। সেই স্লোগান নিয়ে আলোচনা-সমালোচনাও হচ্ছে অনেক।

ওই প্ল্যাকার্ড নিয়ে দাঁড়ানো ও ওই প্ল্যাকার্ডের শ্লোগানে ঠিক কী বুঝিয়েছিলেন তার ব্যাখ্যা দিয়েছেন ইস্টওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী নাদিয়া রহমান বাঁধন।

ফেসবুকে তিনি স্লোগানের ব্যাখায় লিখেছেন, ‘যদি সরকার আমাদের কথা মানে তাহলে আমরা সরকারের উপর খুব হ্যাপি হবো (মন পাবি)। যদি পুলিশ দিয়ে গুলি করতে চাইলেও রেডি আছি (দেহ পাবি), কিন্তু কোনো ভ্যাট নয়।’

তিনি আরও লিখেছেন, ‘এই সিম্পল কথাটা না বুঝে যারা উল্টা-পাল্টা কমেন্ট করছে তাদের কিছু বলার নেই আমার। অন্যদের শ্রদ্ধা করলেই কেবল আপনি কারো কাছ থেকে শ্রদ্ধা পেতে পারেন।’

বাঁধন তার ফেসবুকে আরেক স্ট্যাটাসে আরও লিখেছেন, ‘আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, ইস্টওয়েস্টেরও সাবেক শিক্ষার্থী। বেশ ভালো একটি প্রতিষ্ঠানে বেশ ভালো একটি পদে কর্মরত আছি। কাল ইউআইটিএস শিক্ষার্থীদের সঙ্গে এই প্ল্যাকার্ডসহ ছবিটি তুলেছিলাম। তারপর বসুন্ধরা গেটে গিয়ে বসেছি। আরো অনেক প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে ছবি তুলেছি, কিন্তু কোনোটাই আমার নিজের (প্ল্যাকার্ড) না। এই ছবিটা ভাইরাল হয়েছে কারণ আমি মেয়ে এবং লেম মেন্টালিটির কিছু মানুষ আছে। এই প্ল্যাকার্ডের লেখাটা ফানি (মিনিংলেস না, কিন্তু সেটা বোঝার ক্ষমতা সবার নেই)। আমি মেয়ে বলে আসলে আমার প্ল্যাকার্ড ধরা ঠিক হয়নি, ঘরে বসে অন্যরা কে কি করলো সেটা দেখে চুলকানো ঠিক ছিলো, তাই না? আমি নিজেকে মানুষ ভাবতে পছন্দ করি, নিজেকে সেভাবেই ট্রিট করি।’ এভাবেই জবাব দেওয়া হয়েছে ওই প্ল্যাকার্ডের। তথ্যসূত্র: http://channelionline.com

Advertisements
Loading...