৬ উইকেটের জয়ে সিরিজে সমতা ফেরালো জিম্বাবুয়ে

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ শন উইলিয়ামসের ক্যারিয়ার সেরা ইনিংসের সুবাদে বাংলাদেশকে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ৬ উইকেটে হারালো স্বাগতিক জিম্বাবুয়ে। বাংলাদেশের ছুঁড়ে দেয়া ২৫৩ রানের টার্গেট জিম্বাবুয়ে অতিক্রম করে ১৩ বল হাতে রেখেই। এর ফলে সিরিজে এখন ১-১ সমতা ফিরিয়ে আনলো তাঁরা। আগামী বুধবার সিরিজের শেষ ম্যাচটি তাই রূপ নিলো অলিখিত ফাইনালের।


157752

এ জয়ের মধ্য দিয়ে শুধুমাত্র সিরিজে সমতাই ফেরায়নি ব্রেন্ডন টেলরের দল, উপরন্তু তাঁরা টানা ৭ ম্যাচের পরাজয়ের ধারা থেকেও বের হয়ে এলো। কাকতালীয়ভাবে জিম্বাবুয়ের সর্বশেষ জয়টিও বুলাওয়ের এ মাঠেই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে।

বুলাওয়ের কুইন্স স্পোর্টস ক্লাব মাঠে আজ সফরকারী বাংলাদেশ টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে ব্যাটিং বিপর্যয়ের মুখে পড়ে। দলীয় ৪৪ ওভারে ১৮৫ রান তুলতেই হারিয়ে ফেলে ৭ উইকেট। তবে বাংলাদেশের জন্য “একিলিস” হয়ে উঠেন টেল এন্ডার আব্দুর রাজ্জাক। ৯ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ৪ বাউন্ডারি ও ৫ ছক্কায় ক্যারিয়ারের সর্বপ্রথম হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেয়ার পাশাপাশি বাংলাদেশ দলের জন্য সম্মানজনক একটি দলীয় সংগ্রহ দাঁড় করান। মাত্র ২১ বলে হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন রাজ্জাক যেটি বাংলাদেশের পক্ষে ওয়ানডেতে দ্রুততম হাফ সেঞ্চুরির রেকর্ড

জবাবে ব্যাট করতে নেমে হ্যামিল্টন মাসাকাদজা ও ভুসিমুসি সিবান্দার ব্যাটে ঝড়ো সুচনা করে জিম্বাবুয়ে। কিন্তু দলীয় ৯৪ রানের মাথায় এ দুই ওপেনারসহ ৩ উইকেট হারিয়ে চাপের মুখে পরে জিম্বাবুয়ে। কিন্তু সেখান থেকে দলকে টেনে তোলেন অধিনায়ক টেলর এবং শন উইলিয়ামস। ১৬৭ রানের মাথায় ব্যাক্তিগত ৩৭ রানে টেলর ফিরে গেলেও ওয়ালারকে সাথে নিয়ে অপরাজিত থেকে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন উইলিয়ামস। ৭৫ বলে ৭৮ রানের অনবদ্য ইনিংসে ৫ টি চারের পাশাপাশি স্কয়ার লেগে উড়িয়ে মারা একটি ছক্কাও রয়েছে। টেলর ফিরে যাবার পর ওয়ালারকে সাথে নিয়ে ৬.২৯ রানরেটে ৮৬ রানের পার্টনারশিপ গড়েন যা ভাঙতে পারেননি বাংলাদেশি বোলাররা। দায়িত্বশীল ব্যাটিং এর এক দৃষ্টান্ত প্রদর্শন করেন এই দুই ব্যাটসম্যান।

বাংলাদেশি বোলারদের মাঝে কেউই আজ সুবিধা করতে পারেননি জিম্বাবুয়ের ব্যাটসম্যানদের সাথে। মাসাকাদজা এবং সিকান্দার রাজার জোড়া উইকেট শফিউল ইসলাম পেলেও আটকাতে পারেননি জিম্বাবুয়ের রানের চাকা। পাশাপাশি জিয়াউর রহমান এবং সাকিব আল হাসান উভয়ই ৪২ রান দিয়ে একটি করে উইকেট নেন। অবধারিতভাবেই ম্যাচসেরা হন জয়ের মূল নায়ক শন উইলিয়ামস।

তবে বাংলাদেশের পরাজয়ের পেছনে খেলোয়াড়দের ব্যর্থতার পাশাপাশি আম্পায়ারদের দায়ও কিন্তু কম নয়। ইনসাইড এজ এবং বলের লাইন লেগ স্ট্যাম্পের বাইরে থাকার পরও প্রয়োজনীয় মুহূর্তে সাকিবের বিরুদ্ধে যেভাবে নির্লজ্জের মত আউটের সিদ্ধান্ত দিলেন আম্পায়ার তাতে পুরো ক্রিকেটবিশ্বেরই বিস্ময়ে হতভম্ব হয়ে যাবার কথা। এই সিরিজে একের পর এক আম্পায়ারদের বাজে সিদ্ধান্ত আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের গায়ে রীতিমত কলঙ্কস্বরূপ হয়ে থাকবে অনেকদিন।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...