খয়রামাথা সুইচোরা: চমৎকার এক পাখি

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ শুভ সকাল। আজ রবিবার, ১৩ মার্চ ২০১৬ খৃস্টাব্দ, ৩০ ফাল্গুন ১৪২২ বঙ্গাব্দ, ৩ জমাদিউস সানি ১৪৩৭ হিজরি। দি ঢাকা টাইমস্ -এর পক্ষ থেকে সকলকে শুভ সকাল। আজ যাদের জন্মদিন তাদের সকলকে জানাই জন্মদিনের শুভেচ্ছা- শুভ জন্মদিন।

Chestnut-headed Bee-eate

যে ছবিটি আপনারা দেখছেন সেটি খয়রামাথা সুইচোরা পাখি। দেখতে বড়ই চমৎকার এই পাখিটি। বাংলাদেশের আনাচে-কানাচে এক সময় এই পাখি দেখা গেলেও এখন খুব কমই চোখে পড়ে।

এই পাখিকে খয়রামাথা সুইচোরা কিংবা পাটকিলে-মাথা সুইচোরা পাখি বলা হয়ে থাকে। এর বৈজ্ঞানিক নামঃ Merops leschenaulti ইংরেজি নাম: Chestnut-headed Bee-eater.

মেরোপিডি পরিবারের অন্তর্ভুক্ত মেরোপস গণের এক প্রজাতির ছোট পাখি এটি। এই পাখিকে বাংলাদেশের স্থানীয় পাখি বলা হয়ে থাকে। তবে এদের দেখতে পাওয়া বিরল। বাংলাদেশের ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা ও সিলেট অঞ্চলে এই পাখি দেখা যায়। আই. ইউ. সি. এন. এই প্রজাতিটিকে Least Concern কিংবা আশংকাহীন বলে ঘোষণা করেছে। বাংলাদেশেও এই পাখি Least Concern বা আশংকাহীন বলে বিবেচিত। বাংলাদেশের বন্যপ্রাণী আইনে এই প্রজাতিটি সংরক্ষিত।

এই খয়রামাথা সুইচোরা পাখি লম্বায় ১৮ হতে ২০ সে মি হয়ে থাকে। এদের দেহের রঙ প্রধানত সবুজ। তবে কপাল, মাথার মুকুট, ঘাড়ের পিছন, মুখের নিচ ও কান উজ্জ্বল বাদামী রঙের হয়ে থাকে। দেহের পিছন, পাখা ও লেজ মলিন চকচকে নীল। লেজের মাঝখানের পালকের বাইরের অংশ আবার নীল ও ভিতরের অংশ সবুজ। এই পাখির মুখ, গলা ও চিবুক দেখতে হলুদ। ঠোঁট কালো ও পা ধূসর কালো। স্ত্রী ও পুরুষ পাখি দেখতে একরকম তবে অপ্রাপ্তবয়স্ক পাখি দেখতে কিছুটা মলিন ধরনের।

ছবি ও তথ্য: www.environmentmove.com এর সৌজন্যে।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...